আপনারা ভোট দেন নাই, খোদা আমাকে এমপি বানিয়েছে’

আপনারা ভোট দেন নাই, খোদা আমাকে এমপি বানিয়েছে’

‘আপনারা ভোট দেন নাই, খোদা আমাকে এমপি বানিয়েছে’ শনিবার নান্দাইল উপজেলার মোয়াজ্জেমপুরে ওয়ার্ড যুবলীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমন কথা বলেন সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদিন খান তুহিন

 
ময়মনসিংহ: ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারিতে খোদা আমাকে এমপি বানিয়েছে, আপনারা না। কথা সত্য না মিথ্যা? আমাকে আপনারা ভোট দেন নাই, আমি আপনাদের কাছে ভোট চাইতে আসি নাই।

ময়মনসিংহ-৯ (নান্দাইল) আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদিন খান তুহিনের এমন বক্তব্যের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। এ নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে রাজনৈতিক অঙ্গনে।

গত শনিবার (৩ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নান্দাইল উপজেলার মোয়াজ্জেমপুর ইউনিয়নের কালিয়াপাড়া বাজারে ওয়ার্ড যুবলীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

যুবলীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদিন খান তুহিন বলেন, ‘জবাব চাই আপনাদের কাছে।

জবাব মুখে দিতে হবে, পারবেন না দিতে। ভালো না লাগলে সোজা চলে যাবেন, উল্টো দিকে। আমার কোনো আপত্তি নাই। কিন্তু আমি যা বলবো, প্রশ্ন করবো, জবাব আপনাদের দিতে হবে! ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি খোদা আমাকে এমপি বানিয়েছে, আপনারা না। কথা সত্য না মিথ্যা? পেছনের মানুষ কী বোবা? আমি প্রত্যেকটা মানুষের জবাব চাই। ’
তিনি আরও বলেন, ‘২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি খোদা যখন আমাকে এমপি বানালো তখন আমার সাথে যিনি (সাবেক এমপি মেজর জেনারেল (অব.) আব্দুস সালাম) ছিলেন, তিনি আমার সমপর্যায়ের মানুষ ছিলেন না। তিনি অনেক বড় মানুষ ছিলেন। উনি দেখতে সুন্দর, আমার চেয়ে লম্বা দুই, তিন, পাঁচ, ছয় ইঞ্চি লম্বা ছিলেন। এদেশের মানুষ কি তখন ভেবেছিল জেনারেল সাহেবের হঠাৎ করে বিদায় হবে। আর তুহিনের হঠাৎ করে নান্দাইলে আগমন হবে, আপনারা চান নাই। এমনও মানুষ আছে আমাকে আপনারা চিনতেন না। এমনও মানুষ আছে, রাজনীতির বাইরের মানুষ আমাকে জীবনে দেখেন নাই, কথা ঠিক না বেঠিক?’

সংসদ সদস্য তুহিন বলেন, নান্দাইলের মানুষ অতিষ্ট হয়ে গিয়েছিল, নান্দাইলের মানুষ যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছিল। নান্দাইলের আলেম সমাজ পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়তে পারতো না। ভোর রাতে ফজরের আজানের সময় মসজিদে আজান দিতে পারতো না নর্তকির নাচের আওয়াজে। তখন মানুষ কষ্ট পেত। ঠিক তেমনি এক মুহূর্তে খোদা তাকে (সাবেক মেজর জেনারেল আব্দুস সালাম) জব্দ করলেন, আমার মতো তুচ্ছ মানুষকে এমপি বানালেন। আমাকে আপনারা ভোট দেন নাই। আমি আপনাদের কাছে ভোট চাইতে আসি নাই। ‘

এমপি তুহিনের বক্তব্য প্রসঙ্গে জানতে চাইলে সম্মেলনে উপস্থিত উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাসান মাহমুদ জুয়েল বলেন, ‘এমপি সাহেব এমন কোনো কথাই তার বক্তব্যে বলেননি। একটি কুচক্রী মহল সুপার এডিট করে ভিডিওটি ফেসবুকে একটি ফেইক আইডি থেকে ছড়িয়ে দিয়েছে। আমরা তাকে খুঁজছি, তাকে পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে এমপি আনোয়ারুল আবেদিন খান তুহিন বলেন, ‘এগুলো কাস্টিং করে আসল কথা বাদ দিয়ে শুধু এইটুক রাখছে। আমার বিরুদ্ধে লোক আছে না ভাই? এগুলো অন্য চোখে দেখেন ভাই। ’

তিনি বলেন, ‘ঘটনা হচ্ছে এলাকায় আমার একটি প্রতিপক্ষ আছে, না হলে এই ভিডিও কেন আমার ছেলেরা মোবাইলে ছাড়বে? আপনি অন্য একটা দেখেন, এটাও দেখেন। দুইটার মধ‍্যে আকাশ-পাতাল তফাৎ। ’

ওই সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাসান মাহমুদ জুয়েল, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি আবু বকর ছিদ্দিক বাহার, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু বকর ছিদ্দিক, সাধারণ সম্পাদক হাফেজ আজিজুল ইসলাম, স্থানীয় চেয়ারম্যান মোছা. তাসলিমা আক্তার, যুবলীগ নেতা মো. শাহজাহান প্রমুখ।