"ইনবক্সে আসেন" অনলাইন ব্যবসায় অভিনব প্রতারণা

"ইনবক্সে আসেন" অনলাইন ব্যবসায় অভিনব প্রতারণা
ছবি: সংগৃহীত

ফেসবুকে প্রতারণার কারণে গ্রেপ্তার হয়েছে এক দম্পতি। সামাজিক মাধ্যমে পেজ খুলে ভারতীয় শাড়ি বিক্রির লোভনীয় বিজ্ঞাপন দিয়ে ক্রেতার কাছ থেকে প্রতারণার মাধ্যমে অগ্রিম টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাদের। মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) দুপুরে গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) ঢাকা মেট্রো দক্ষিণ সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) সাগর সরকার। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন জান্নাতুল ফেরদৌস ওরফে কাজল (২৮) ও তার স্বামী খায়রুজ্জামান (৩৭)।

পুলিশ জানায়, তারা ফেসবুকে ‘তাবিহা শাড়ি হাউস’ নামে একটি পেজ খুলে অল্প দামে ভারতীয় শাড়ি বিক্রির লোভনীয় বিজ্ঞাপন দিয়ে ক্রেতাদের আকৃষ্ট করত। এরপর ক্রেতারা দাম জানতে চাইলে কাজল বলতেন, ‘আসেন, ইনবক্সে আসেন’। দরাদরি করে শাড়ির মূল্য নির্ধারণ করার পর কিছু টাকা অগ্রিম বিকাশ করতে বলা হতো। এরপর গ্রাহকের নম্বরে কাজলের স্বামী খায়রুজ্জামান ফোন দিয়ে বলতেন, শাড়ি নিয়ে এসেছি। প্রোডাক্ট কোড পেজে দেওয়া নম্বরে ফোন করে জেনে আমাকে জানান। তারপর ক্রেতা ফোন করলে কাজল বলতেন, শাড়ির বাকি টাকা পরিশোধ করেন, তাহলে প্রোডাক্ট কোড পেয়ে যাবেন। সরল বিশ্বাসে গ্রাহকরা পুরো টাকা পরিশোধ করে ফেললে ফেসবুকে ব্লক করে দেওয়া হতো এবং ফোনে গালাগাল করা হতো। এভাবে বহু ক্রেতাকে প্রতারিত করে আসছিল তারা।

পুলিশ আরও জানায়, রাজধানীর গেন্ডারিয়ায় এক ভুক্তভোগীর মামলা তদন্ত করতে গিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এএসপি সাগর বলেন, গত পাঁচ মাস ধরে কোনো শাড়ি সরবরাহ না করেই মানুষকে ঠকিয়ে আসছিল এই দম্পতি। রমজানের শুরু থেকে প্রতিদিন অন্তত ১৫ হাজার টাকা করে হাতিয়ে নিচ্ছিল তারা। এর আগে প্রতারণা মামলায় গ্রেপ্তার হয়েছিল কাজলের স্বামী খায়রুজ্জামান। তাদের কাছ থেকে সাতটি মোবাইল এবং তাদের ব্যবহৃত ফেসবুক পেজ ও বিকাশ অ্যাকাউন্ট জব্দ করা হয়েছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।