ঈদ এসেছে করবীতলে - তৌহিদুল ইসলাম

ঈদ এসেছে করবীতলে - তৌহিদুল ইসলাম
সবাইকে ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা

ঈদ মানে আনন্দ। ঈদের খুশি সবার মাঝে নিজেকে বিলিয়ে দেওয়ার মাঝেই রয়েছে অপার আনন্দ। একমাস সিয়াম সাধনার পর এসেছে পবিত্র ঈদ উল ফিতর । এই ভুখণ্ডে ঈদ শুধু মুসলমানদের উৎসব নয় । এই উৎসবে অংশ নেয় মুসলিম, হিন্দু, খৃষ্টান, বৌদ্ধ সকল ধর্মের অনুসারীরা । ঈদ প্রতিটি বাঙ্গালীর হৃদয়কে আন্দোলিত করে। কারন ঈদ হচ্ছে বাঙালীর জাতীয় উৎসব গুলোর মাঝে প্রধান উৎসব।

ঈদের দিনে ধনী-গরিব নির্বিশেষে সবাই এক কাতারে শামিল হয়ে মহান আল্লাহর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। ঈদের আগের এক মাস সিয়াম সাধনার মাধ্যমে আমরা আত্মাকে পরিশুদ্ধ করি। অপরের দুঃখ-কষ্ট বুঝতে সচেষ্ট হই। রোজার প্রধান লক্ষ্য ত্যাগ ও সংযম। ব্যক্তিগত, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় জীবনে ত্যাগের অনুপম দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে পারলে সেটাই হবে সবার জন্য কল্যাণকর। 

গত দুই বছর ঈদ উৎসব উদযাপিত হয়েছে ভিন্ন প্রেক্ষাপটে। করোনা মহামারি মানুষের ঈদ আনন্দকে অনেকটা ম্লান করে দিয়েছে। এবার করোনার সংক্রমণ অনেকটাই কমে আসায় ঈদ উদযাপিত হচ্ছে পরিপূর্ণ উৎসবের মধ্য দিয়ে। প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদ উদ্যাপন করতে বিপুলসংখ্যক মানুষ নিজ বাড়ি এসেছেন এবার।

আমাদের জীবনে অনেক সমস্যা আছে, আছে অনেক জটিলতা। তা সত্ত্বেও বিভিন্ন জাতীয় উৎসবে শ্রেণি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সব মানুষ শরিক হন। যার যার সামর্থ্য অনুযায়ী প্রিয়জনকে নতুন পোশাক ও উপহারসামগ্রী কিনে দেন। যারা সারা বছর জীর্ণ পোশাকে থাকেন, তারাও ঈদের দিনে সন্তানদের গায়ে নতুন পোশাক পরাতে চান। কারণ ঈদের আনন্দ কেবল একা ভোগ করার নয়, গরিব-দুঃখী মানুষকে তাতে শামিল করতে হয়।

ঈদ আসে সাম্যের দাওয়াত নিয়ে। অনেকে ধর্মের আনুষ্ঠানিকতাকে বড় করে দেখেন। এর মর্ম অনুধাবন করেন না। দুঃখজনক হলেও সত্য, আমাদের রাজনৈতিক ও সামাজিক জীবনে আনন্দ ও সম্প্রীতির বড় অভাব। তা সত্ত্বেও ঈদুলফিতরের আনন্দ সবাই ভাগাভাগি করে নেবেন-এটাই প্রত্যাশা। 

করবী বাতাসের অরুপতলে, এসো বিহারে রুপে পূর্ণ করে। দ্যাখো নতুন চাঁদ উঠেছে ঈদের খুশিতে উৎসবে মোহিনী সুরে। দেশে-প্রবাসে, কাছে-দূরে ঈদ আনন্দে চলুন উল্লাসে মাতি একসাথে।

সবাইকে ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা।

তৌহিদুল ইসলাম 
(লেখক: সাংবাদিক ও কলামিস্ট )