উত্তপ্ত হয়ে উঠছে লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুরের রাজনৈতিক পরিস্থিতি 

উত্তপ্ত হয়ে উঠছে লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুরের রাজনৈতিক পরিস্থিতি 
ছবি: সংগৃহীত

এস এম আওলাদ হোসেন, সিনিয়র রিপোর্টার।।লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে রাজনৈতিক পরিস্থিতি আবারও উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। আজ সোমবার (২৯ আগষ্ট) শহরের বাসস্ট্যান্ডে বিএনপির জনসমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে। পূর্বনির্ধারিত এই আয়োজনের বিষয়টি জানিয়ে প্রশাসনকে অবহিতকরণ চিঠিও দিয়েছে দলটি। একই সময়ে, একই স্থানে প্রতিবাদ ও শোকসভার ঘোষণা দিয়েছে উপজেলা ও পৌর আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও শ্রমিকলীগ। ওই সমাবেশ আয়োজনে দলটি এরই মধ্যে নেতা-কর্মীদের জন্য ‘জরুরি নোটিশ’ জারি করেছেন।

বৃহস্পতিবার (২৫ আগষ্ট) বিকালে উপজেলা প্রশাসনের আইনশৃংখলা কমিটির বিশেষ সভায় নবাগত পুলিশ সুপার মাহফুজ্জামান আশরাফ বলেছেন শোকের মাসে রায়পুরে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে দেয়া যাবেনা বলে সতর্ক করেছেন।।

গত বুধবার (২৪ আগস্ট) জ্বালানি তেল, পরিবহনভাড়া বৃদ্ধি ও দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে পৌর শহরের বাসস্ট্যান্ডে বিএনপির সমাবেশ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু একই সময়ে একই স্থানে আওয়ামী লীগ শোকসভা ও বিক্ষোভ কর্মসূচির আয়োজন করায় বিএনপি তাদের সমাবেশ স্থগিত ঘোষণা করে। আওয়ামী লীগ যথারীতি তাদের শোকসভা ও বিক্ষোভ মিছিল সম্পন্ন করে।

গত শনিবার (২৭ আগস্ট) সকালে ফেসবুকে প্রকাশ পায় বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের রায়পুর উপজেলা ও পৌর শাখা কমিটির প্যাডে ‘জরুরি নোটিশ’ শিরোনামের একটি চিঠি। এটি ২৬ আগস্ট তারিখে উপজেলা আহ্বায়ক তানভীর হায়দার চৌধুরী রিংকু ও আটজন যুগ্ম আহ্বায়ক স্বাক্ষর করেন। ওই চিঠিতে দলের নেতা-কর্মীদের প্রস্তুতিসভা করাসহ সোমবার (২৯ আগস্ট) বিকেলে বাস স্ট্যান্ডে শোকসভা ও বিক্ষোভ মিছিলে অংশগ্রহণ আহ্বান জানানো হয়।

অন্যদিকে গত ২৫ আগস্ট উপজেলা বিএনপির পক্ষ থেকে রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) একটি অবহিতকরণ চিঠি দেওয়া হয়। উপজেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট মনিরুল ইসলাম হাওলাদার তাতে স্বাক্ষর করেন। ওই চিঠিতে বলা হয়, সোমবার (২৯ আগস্ট) বিকেলে শহরের বাসটার্মিনাল এলাকায় উপজেলা ও পৌর বিএনপির এবং সহযোগী সংগঠনের পক্ষ থেকে সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে। ওই দিন দুপুর ২টা থেকে বিকেল ৬টা পর্যন্ত জনসভাস্থলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশ অনুরোধ জানানো হয়।

উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তানভীর হায়দার চৌধুরী রিংকু বলেন, ‘ওই দিন বাসটার্মিনাল এলাকায় বিএনপির কোনো কর্মসূচি আছে কি না, তা জানা নেই। শোকের মাসের এই কর্মসূচি আমাদের পূর্বনির্ধারিত। আমরা আমাদের শোকসভা ও বিক্ষোভ মিছিল নির্ধারিত সময়েই করব।’

রায়পুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট মনিরুল ইসলাম হাওলাদার বলেন, ‘এর আগেও আওয়ামী লীগ পরিকল্পিতভাবে আমাদের পূর্বনির্ধারিত জনসমাবেশ বানচাল করেছে। বিশৃঙ্খলা এড়াতে ও প্রশাসনের অনুরোধে আমরা ওই সময় জনসভা স্থগিত করেছিলাম। আবারও আমাদের জনসভা বানচাল করতে তারা ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। এবার আমরা জনসভা করবই। আওয়ামী লীগ বিশৃঙ্খলার চেষ্টা করলে এর দায়ভার তাদের ও প্রশাসনকেই নিতে হবে।’

রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শিপন বড়ুয়া বলেন, ‘সভা-সমাবেশের নামে কাউকে বিশৃঙ্খলা করতে দেওয়া হবে না। বিশৃঙ্খলা এড়াতে এবং আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি শান্ত রাখতে আমরা সচেষ্ট রয়েছি।