উত্তরপত্রে আজকে মন ভালো নেই লেখা শিক্ষার্থী থেকে জবাব চেয়েছে জবি প্রশাসন

উত্তরপত্রে আজকে মন ভালো নেই লেখা শিক্ষার্থী থেকে জবাব চেয়েছে জবি প্রশাসন
ছবি: সংগৃহীত

তানভীর আহমেদ ,জবি প্রতিনিধি।। সম্প্রতি ভাইরাল হওয়া উত্তরপত্রে "স্যার আজকে আমার মন ভালো নেই "লেখা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্র তানভীর মাহতাবের কাছ থেকে এবার আগামী (৪ জুলাই) সোমবারের মধ্যে মন খারাপের কারণ জানতে চেয়েছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষ।

এর আগে গত বুধবার অভিযুক্ত শিক্ষার্থীর কাছ থেকে লিখিত বক্তব্য নেয় ইংরেজি বিভাগ।‌ পরবর্তীতে তানভীরের সেই লিখিত বক্তব্য ইংরেজি বিভাগ কর্তৃপক্ষ প্রক্টর দপ্তরে পাঠায় ।
এই বিষয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মোস্তফা কামাল বলেন, ‘ওই শিক্ষার্থী যে অপরাধ করেছে। সেগুলোর কারণ তাকে দর্শাতে হবে। যথাযথ কারণ বলতে না পারলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
গত বৃহস্পতিবার জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি বিভাগে ইনকোর্স মিড টার্ম পরীক্ষার অতিরিক্ত উত্তরপত্রের প্রথম পাতায় ‘স্যার আজকে আমার মন ভালো নেই’ বাক্যটি লেখা একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। ছবিতে দেখা গেছে, ইংরেজি বিভাগের প্রথম সেমিস্টারের এক শিক্ষার্থীর পরীক্ষার অতিরিক্ত উত্তরপত্রে বাক্যটি লেখা। পাশেই আবার লাল কালিতে শূন্য নম্বর দিয়ে ‘বাতিল’ লেখা।
ঐ দিন সকালে মজা করে বিষয়টি ফেসবুকে দিলেও রাত গড়াতে সেটি ভাইরাল হয়ে যায়। পরবর্তীতে বিষয়টি‌ বিভাগ কর্তৃপক্ষের নজরে আসার পর সত্যি মাহতাবের মন খারাপ হয়ে যায় । ঘটনার তদন্তে করতে গিয়ে বিভাগ কর্তৃপক্ষ জানান। ভাইরাল উত্তরপত্রটি কোনো পরীক্ষার অংশ নয় ।
এ বিষয়ে তানভীর মাহতাব বলেন, ছবি ভাইরাল হওয়ার দিন বিভাগের কোনো পরীক্ষা ছিল না। এই অতিরিক্ত উত্তরপত্রটি কিছুদিন আগে ক্লাসরুমে পড়ে থাকায় বাসায় নিয়ে এসেছিলেন। পরে বৃহস্পতিবার সকালে উত্তরপত্রটিতে "স্যার আজকে আমার মন নেই " লিখেন। তারপর স্যারের স্বাক্ষর নকল করে নিজেই নিজের খাতা যাচাই করেন। উত্তরপত্রে লাল কালি দিয়ে শূণ্য দিয়ে পরীক্ষার খাতা বাতিল লিখেন । পরবর্তীতে সকালে ফেসবুকে পোস্ট করেন। পরে অনেকেই বিষয়টি ঠিক হয়নি জানালে তা সরিয়ে নেন। তবে অনেকে ছবিটি সংগ্রহ করে রাখায় এবং স্ক্রিনশট নেওয়া যায় তা ছড়িয়ে পড়ে।’