কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগে ন্যাড়া পাহাড়ে সবুজায়নের কাজ চলছে

কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগে ন্যাড়া পাহাড়ে সবুজায়নের কাজ চলছে
ছবি: সংগৃহীত

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার, ৯ জুন ।। কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের রেঞ্জ কর্মকর্তা ও বনবিট কর্মকর্তাসহ বনকর্মীদের নিরলস প্রচেষ্টায় সবুজ অরণ্যে সৃষ্টির কাজ শুরু হয়েছে। উত্তর বনবিভাগের সকল রেঞ্জ ও বনবিটে নিয়মিত চলছে সুফল প্রকল্পের বনায়নের কাজ। বন বিভাগের কর্মকর্তাদের নিরলস প্রচেষ্টা এবং জনকল্যাণে সরকার কর্তৃক গৃহীত প্রকল্প বাস্তবায়নে উদ্যোগী মনোভাবের কারণে কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের আওতাধীন এলাকাগুলো ভরে উঠেছে সবুজে সমারোহে। 

বনকেন্দ্রিক জনগোষ্ঠীর বননির্ভরতা কমিয়ে আর্থসামাজিক উন্নয়ন ঘটানো, বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ, বৃক্ষাচ্ছাদন বৃদ্ধি এবং টেকসই বন ব্যবস্থাপনার লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে সুফল প্রকল্প।


নার্সারি সৃজন, প্রান্তিক ও পতিত ভূমিতে বৃক্ষরোপণ করে বনজ সম্পদ সৃষ্টি, মরুময়তারোধ, ক্ষয়িষ্ণু বনাঞ্চল রক্ষা ও উৎপাদন বৃদ্ধি, পরিবেশ উন্নয়ন ও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ, নারীর ক্ষমতায়ন ও নেতৃত্ব সৃষ্টি এবং সর্বোপরি কর্মসংস্থান ও দারিদ্র নিরসনে ভুমিকা রাখছে সুফল প্রকল্প।
টেকসই বন ও জীবিকা বা সাসটেইনেবল ফরেস্ট অ্যান্ড লাইভলিহুড (সুফল) প্রকল্পের ২০২১-২০২২ অর্থ বছরের বনায়নে কাঙ্ক্ষিত সুফল আনতে বৃক্ষ রোপন কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. আনোয়ার হোসেন সরকার।
গত ১ জুন বাঘখালী রেঞ্জের বৃক্ষরোপণ অভিযান-২০২২ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, কক্সবাজার দক্ষিণ বনবিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. সারওয়ার আলম, কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের সহকারী বন সংরক্ষক ড. প্রান্তোষ চন্দ্র রায় ।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন,  বাঘখালী রেঞ্জ কর্মকর্তা সরওয়ার জাহান, কচ্ছপিয়া, ঘিলাতলি ও বাঘখালী বনবিটের কর্মকর্তা, কর্মচারী এবং বনজায়গীরদারগন। 
সূত্র জানায়, বাঘখালী রেঞ্জের কচ্ছপিয়া, ঘিলাতলি, বাঘখালী বিটে টেকসই বন ও জীবিকা (সুফল) প্রকল্প এর আওতায় ২০২১-২২ অর্থ বছরে মিশ্র প্রজাতির দ্রুত বর্ধনশীল বাগান, ধীর বর্ধনশীল বাগান, এনরিচমেন্ট বাগান, ষ্ট্যান্ড ইম্প্রুভমেন্ট বাগান, এএনআর বাগান সহ ৪৬৫ হেক্টর বাগান সৃজন কাজ চলছে।


একই ভাবে কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের ঈদগাঁও রেঞ্জের পূর্ণগ্রাম বিট, ফুলছড়ি রেঞ্জের মেদাকচ্ছপিয়া বিট, ফুলছড়ি বিট, রাজঘাট বিট, ফাসিয়াখালী রেঞ্জ,
জোয়ারিয়ানালা রেঞ্জের বনবিট গুলোতে বৃক্ষরোপন উদ্বোধন করা হয়েছে। 
এসময় কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো.আনোয়ার হোসেন সরকার,
কক্সবাজার সদর- রামু আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল, রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রণয় চাকম, রামু সহকারী কমিশনার (ভুমি) রিগ্যান চাকমা, জোয়ারিয়ানালা রেঞ্জ কর্মকর্তা সুলতান মাহমুদ হাওলাদার, জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান, কামাল শামশুদ্দিন আহামেদ (প্রিন্স), রামু উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) ফরহাদ হোসাইন, ঈদগাঁও রেঞ্জ কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন খাঁন, 
ফুলছড়ি রেঞ্জ কর্মকর্তা ফারুক বাবুল, ফাঁসিয়া খালী রেঞ্জ কর্মকর্তা  শেখ মিজানুর রহমান, ঈদগড় রেঞ্জ কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান সহবিট কর্মকর্তা, স্টাফ ও ভিলেজারগন উপস্থিত ছিলেন । 
সরেজমিনে বাঘখালী রেঞ্জ সহ বিভিন্ন রেঞ্জ ও বনবিট এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, ন্যাড়া পাহাড়ে সবুজাভ সৃষ্টির মাধ্যমে প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষা, জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুপ হ্রাস, জীব বৈচিত্র্য সংরক্ষণ ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবিকার উৎস হিসেবে বন বিভাগের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। কুড়াচ্ছেন মানুষের প্রশংসাও। 
বাঘখালী রেঞ্জ কর্মকর্তা সারওয়ার জাহান বলেন, বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে টেকসই বন ও জীবিকা (সুফল) প্রকল্পের আওতায় এই বনায়ন করা হচ্ছে এবং পাহাড়ী এলাকায় সুফল বনায়নে সবুজায়নের কাজ চলমান রয়েছে।