কক্সবাজার কলাতলীতে ‘হোটেল জামান সুইটস’ দখলের চেষ্টা : গুলি বর্ষণ, মারধর ও অস্ত্র উদ্ধার

কক্সবাজার কলাতলীতে ‘হোটেল জামান সুইটস’ দখলের চেষ্টা : গুলি বর্ষণ, মারধর ও অস্ত্র উদ্ধার
ছবিঃ সংগৃহীত

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, কক্সবাজার।।১১ জুলাই, রবিবার।। কক্সবাজার শহরতলির কলাতলী হোটেল মোটেল জোনে হোটেল জামান সুইটস দখলের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসময় হোটেলটির এক পরিচালককে মারধর ও গুলি বর্ষণ  করার অভিযোগ করেছেন হোটেল কর্তৃপক্ষ।

শনিবার ১০ জুলাই বেলা ২ টার দিকে ওই  জামান হোটেলের মালিক চট্টগ্রামের ওয়াহিদুজ্জামান বাবুর নেতৃত্বে তার স্ত্রী, স্ত্রীর ভাই ও পুত্র মিলে এই হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে বলে জানিয়েছেন হোটেল কর্মকর্তা—কর্মচারীরা।
হোটেল জামান সুইটস ম্যানেজার জানান, হোটেলের পরিচালক সুফিয়ান আনছারীকে বাবুসহ সবাই মিলে মারধর করে। পরে গুলি বর্ষণ করেন তিনি।
হোটেলটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহজাহান আনছারী বলেছেন, ২০১৬ সালে পাঁচ বছরের জন্য হোটেলটি ভাড়া নেন শাহজাহান আনছারী। এর মধ্যে ১৭টির ফ্ল্যাটের ক্রয় মালিকও তিনি। অন্য ফ্ল্যাটগুলোও মালিক বিভিন্ন জনকে বিক্রি করে দিয়েছেন মালিক ওয়াহিদুজ্জামান বাবু।
শাহজাহান আনছারী আরও জানিয়েছেন, চুক্তির মেয়াদ শেষ না হতেই হোটেল দখলের চেষ্টা করে আসছেন তিনি। এই নিয়ে হাইকোর্ট নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে। কক্সবাজার    এডিএম কোর্টের দুটি মামলায় ১৪৪ ধারায় নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। কিন্তু তা না মেনে আবারো হোটেলটি দখলের চেষ্টা করেছেন বাবু।
তিনি আরও বলেন, হোটেল দখল করতে এসে বাধা দেয়ায় আমার ছোট ভাই সুফিয়ানকে হত্যার উদ্দেশ্যে প্রকাশ্যে গুলি চালায় চিহ্নিত প্রতারক বাবু।
তিনি আরও বলেন, বাবু আমার প্রদত্ত হোটেল ভাড়া চুক্তির সেলামীর আড়াই কোটি টাকা ফেরত ও ক্রয়কৃত ফ্ল্যাটের রেজিষ্ট্রি দিতে গড়িমসি করছে।
কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) বিপুল চন্দ্র জানিয়েছেন, গুলি বর্ষণ ও দু’পক্ষের মধ্যে ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান কক্সবাজার  সদর মডেল থানার একদল পুলিশ। তারা গিয়ে ওয়াহিদুজ্জামান বাবুর লাইসেন্সধারী একটি শর্টগান থানায় নিয়ে এসেছেন।

তবে শাহজাহান আনছারী জানান, বাবুর আরও একটি অবৈধ অস্ত্র রয়েছে। যা হোটেলের সিসিটিভি’র ফুটেজই বড় প্রমাণ। তবে এই বিষয়ে কথা বলতে অপরাগতা জানিয়েছেন ওয়াহিদুজ্জামান বাবু।