কক্সবাজারে চার সুন্দরী নারীসহ দালাল রুবেল আটক : পর্ণোভিডিও উদ্ধার 

কক্সবাজারে চার সুন্দরী নারীসহ দালাল রুবেল আটক : পর্ণোভিডিও উদ্ধার 
ছবিঃ সংগৃহীত

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, কক্সবাজার, ১৪ আগষ্ট।। কক্সবাজার সদর উপজেলার চৌফলদন্ডি ইউনিয়নে একটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে পর্ণোভিডিও, চারজন সুন্দরী নারীসহ জমির হোসাইন রুবেল নামের কথিত এক মানবাধিকার কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার (১৪ আগষ্ট) ভোররাত ৩টার দিকে কক্সবাজার সদরের চৌফলদন্ডি ইউনিয়নের উত্তরপাড়ায় এ অভিযান চালানো হয়।
আটক জমির হোসাইন রুবেল ওই এলাকার মৃত মো. আলমের ছেলে। সে মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগের সভাপতি বলে জানা গেছে।
তার নিকট থেকে উদ্ধারকৃত পরিচয়পত্রে ‘মানবাধিকার তথ্য পর্যবেক্ষণ সোসাইটি’ নামক একটি সংস্থার চৌফলদন্ডি কমিটির সভাপতি লেখা রয়েছে ।
শনিবার (১৪ আগষ্ট) দুুপুরে তাদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
আভিযানের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজার সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ মুনীর উল গীয়াস।
তিনি জানান, অভিযোগ পেয়ে চৌফলদন্ডী এলাকার একটি বসতবাড়িতে অভিযান চালানো হয়। এ সময় জমির হোসাইন রুবেল নামের একজনকে ৪ জন নারীসহ আটক হয়। তারা মাদক ও দেহ ব্যবসার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে জড়িত ছিল।
ওসি আরও জানান, রুবেলের মোবাইলে পর ভিডিও এবং ছবি পাওয়া গেছে। তাদের বিরুদ্ধে মানবপাচার ও পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা হচ্ছে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জমির হোসাইন রুবেল কক্সবাজার শহরের বিভিন্ন আবাসিক হোটেলে ডজনাধিক নারী সাপ্লাই দিত। বিভিন্ন আবাসিক হোটেল, কটেজে পতিতা ও মদের আসর বসাতো। লকডাউনে হোটেল বন্ধ থাকায় নিজ বাড়িতেই পতিতা ব্যবসা এবং জলসা গড়ে তুলে। আটককৃত নারীরা দিনে ঘুমাতেন। রাতে তারা আসর জমাত। তার সঙ্গে রয়েছে আরো নামিদামি কয়েকজন ব্যক্তি। যারা রুবেলের অপকর্মের ভাগ নেয় এবং আশ্রয় প্রশ্রয় দিয়ে আসছে।
অভিযোগ আছে, বিভিন্ন নষ্ট নারীর সাথে সম্পর্ক রয়েছে দালাল রুবেলের। কৌশলে তাদের গোপনে ভিডিও ধারণ করতো। তা নিয়ে ব্লেকমেইলিং ও টাকা হাতিয়ে নিত। রাজনৈতিক ও মানবাধিকার পরিচয়ে রুবেল গড়ে তুলে অপ্ররোধ্য সিন্ডিকেট।
এলাকাবাসী বলছে, সঠিক অনুসন্ধান করলে বেরিয়ে আসবে আরো অনেক অজানা তথ্য ও রহস্য। পাওয়া যাবে রুবেলের নেপথ্যে থাকাদের মুখোশ উন্মোচন হবে অপরাধীচক্রের।