কক্সবাজার পৌরসভার ১২ নং ওয়ার্ডের ডালিম প্রতীকের ব্যাপক নির্বাচনী শোডাউন

কক্সবাজার পৌরসভার ১২ নং ওয়ার্ডের ডালিম প্রতীকের ব্যাপক নির্বাচনী শোডাউন
ছবিঃ সংগৃহীত

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, কক্সবাজার, ১২ নভেম্বর।। কক্সবাজার পৌরসভার ১২ নং ওয়ার্ডের উপনির্বাচনে কাউন্সিলর পদপ্রার্থী হয়েছেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও জেলা আওয়ামী লীগের উপ- প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক এমএ মনজুর। তার প্রতীক ডালিম। প্রতীক বরাদ্দ পাওয়ার পর তার পক্ষে প্রচারণায় সরগরম হয়ে উঠেছে পুরো এলাকা। ১২ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগও তাকে সমর্থন দিয়ে প্রচারণা শুরু করেছে। 

১২ নভেম্বর শুক্রবার প্রতীক বরাদ্দ পেয়ে কাউন্সিল পদপ্রার্থী এমএ মনজুর ১২ নং ওয়ার্ডের পুরো নির্বাচনী এলাকায় কয়েক হাজার কর্মী সর্মথক নিয়ে শোডাউন করেন।
শুক্রবার ১২ নভেম্বর বিকালে কলাতলি বেলি হ্যাচারী থেকে বিশাল নির্বাচনী শোডাউন শুরু করে কলাতলি, সৈকতপাড়া, ফাতেরঘোনা, বাদশাঘোনা, লাইট হাউস পাড়াসহ বিভিন্ন পাড়া-মহল্লা প্রদক্ষিণ করে।
সন্ধ্যায় কলাতলি ডলফিন মোড়ে এসে শোডাউন শেষ করে। শোডাউন পরবর্তী সংক্ষিপ্ত নির্বাচনী পথসভায় ডালিম প্রতীকে কাউন্সিলর পদপ্রার্থী এমএ মনজুর উপস্থিত জনগণের কাছে দোয়া ও ভোট প্রার্থনা করেন।
এসময় কয়েক হাজার দলীয় কর্মী, তার সর্মথক ও সাধারণ ভোটাররা তাকে বিপুল ভোটে জয়ী করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
শুক্রবার থেকেই শুরু হয়েছে প্রচার প্রচারণা মিটিং মিছিল। 
প্রচারণার সময় ১২ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহেদ আলী শাহেদ ও সাধারণ সম্পাদক মো. মোর্শেদসহ আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ এমএ মনজুরকে সর্মথন দিয়েছেন। ১২ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগসহ
উৎসুক ভোটাররা এমএ মনজুর প্রচারণায় স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করছে। প্রতীক পেয়ে প্রথমদিনই কয়েক হাজার মানুষ নির্বাচনী শোডাউন ও প্রচারণায় অংশ নেয়। 
এই সময় তারা ১২ নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা এমএ মনজুরের পক্ষেও গণসংযোগ করেন, এবং ভোটারদের ব্যাপক সাড়া পান। 

কাউন্সিলর প্রার্থী এমএ মনজুর জানান, দীর্ঘদিন ধরে ১২ নম্বর ওয়ার্ডের মানুষ উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত। তিনি ১২ নম্বর ওয়ার্ডের মানুষের জীবনযাত্রার মানোন্নয়ন এবং আধুনিকায়নের ঘোষণা দেন। এই এলাকার অনুন্নত রাস্তাঘাট অপরিচ্ছন্ন ড্রেনেজ ব্যবস্থাসহ নানা ধরনের ভোগান্তি এই এলাকার মানুষের নিত্য দিনের সঙ্গী। 
এমএ মনজুর বলেন তিনি নির্বাচিত হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষিত ডিজিটাল ও উন্নত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যকে এগিয়ে নিয়ে যাবেন। ভোটারদের সুখে দুঃখে পাশে থাকবেন বলে কথা দেন মনজুর। এছাড়াও দলমত নির্বিশেষে উন্নয়নের স্বার্থে একসঙ্গে কাজ করে ডালিম প্রতীকে ভোট দিয়ে উন্নয়নের অংশীদার হওয়ার আহবান জানান তিনি।
উপনির্বাচনে কাউন্সিলর পদপ্রার্থী এমএ মনজুরকে আওয়ামী লীগের সমর্থনের বিষয়ে কথা বলতে ১২ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহেদ আলী শাহেদের মুঠো ফোনে একাধিক বার রিং করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি। তবে সাধারণ সম্পাদক মোর্শেদুল হক চৌধুরী বলেন, উপনির্বাচনে কাউন্সিলর পদপ্রার্থী এমএ মনজুরকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী। তাকে আমরা ১২ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ দলীয় প্রার্থী হিসেবে সমর্থন দিয়েছি, তার প্রচার প্রচারণা অংশ নিচ্ছি। 
এদিকে, জেলা আওয়ামীলীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক আওয়ামী লীগ পরিবারের সন্তান কাজী মোস্তাক আহমদ শামীম ১২ নং ওয়ার্ডে উপ নির্বাচনে পাঞ্জাবী প্রতীক নিয়ে কাউন্সিলর পদপ্রার্থী হয়েছেন।
কক্সবাজার পৌরসভার ১২ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও একই ওয়ার্ডের নির্বাচিত কাউন্সিলর কাজী মোর্শেদ আহমেদ বাবু অসুস্থ জনিত কারণে গত ২৬ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় মৃত্যু বরণ করলে এই ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদ শুন্য হয়। পরে এই ওয়ার্ডে উপ নির্বাচন ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। আগামী ২৮ নভেম্বর ১২ নং ওয়ার্ডে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।
অকাল প্রয়াত কাউন্সিলর কাজী মুর্শেদ আহমেদ বাবুর বড় ভাই কাজী পরিবার থেকে উপ নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন আওয়ামী লীগ নেতা কাজী মোস্তাক আহম্মেদ শামীম ( প্রতীক পাঞ্জাবি)।