কক্সবাজারে বিজিবির পৃথক অভিযানে ৩০ কোটি ২৭ লাখ টাকার আইস ও ইয়াবা উদ্ধার : আটক-৩

কক্সবাজারে বিজিবির পৃথক অভিযানে ৩০ কোটি ২৭ লাখ টাকার আইস ও ইয়াবা উদ্ধার : আটক-৩
ছবি: সংগৃহীত

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার।।কক্সবাজারের টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) ও  কক্সবাজার ব্যাটালিয়ন (৩৪ বিজিবি) এর দায়িত্বপূর্ণ সীমান্ত এলাকায় দুই দিনে পৃথক পৃথক মাদক বিরোধী বিশেষ অভিযান চালিয়ে ৩০ কোটি ২৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা মুল্যের

ক্রিস্টাল মেথ (আইস) ও  ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। এসময় আটক করা হয়েছে তিন জন মাদক কারবারীকে। গত বৃহস্পতিবার দিনগত রাতে ও বুধবার পৃথক এ অভিযান চালানো হয়। উদ্ধার হওয়া ইয়াবা ও আইস এর মুল্য  কোটি টাকা।
কক্সবাজার ৩৪ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. মেহেদী হোসাইন কবির জানিয়েছেন,গত ১৫ জুন টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) এর অধিনস্থ হ্নীলা বিওপি'র একটি বিশেষ টহলদল গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে হ্নীলা বিওপি বেড়িবাঁধ নামক এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে  তিন কোটি টাকা মূল্যমানের ১ লাখ পিস ইয়াবাসহ ২ জন মাদক কারবারীকে আটক করা হয়।
আটকরা হলেন, টেকনাফ উপজেলা হীলা ইউনিয়নের অবরাং এলাকার নৃত কাদের বকস এর ছেলে আব্দুর রহমান (৩০) ও একই ইউনিয়নের মৌলভীবাজার এলাকার আব্দুস সালামের ছেলে মোহাম্মদ নূর (২৫)।
পরবর্তীতে ধৃতদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ১৬ জুন আনুমানিক রাত আড়াইটার সময় ব্যাটালিয়ন সদর হতে অধিনায়কের নেতৃত্বে একটি বিশেষ টহলদল টেকনাফ হীলা বিওপি'র দায়িত্বপূর্ণ এলাকার শ্মশানঘাট নামক এলাকায় তল্লাশী অভিযান চালায়। উক্ত অভিযানে বেড়িবাঁধের নিকটে পরিত্যক্ত একটি ঘরের পার্শ্বে বিশেষভাবে লুকায়িত অবস্থায় একটি প্লাষ্টিকের বস্তা উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। উদ্ধারকৃত বস্তুার ভিতর হতে ২১ কোটি ৫৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা মূল্যমানের ৪.৩১৫ কেজি ক্রিস্টাল মেথ আইস উদ্ধার করা হয়। 
আটককৃতদেরকে জব্দকৃত ক্রিস্টাল মেথ আইস এবং ইয়াবাসহ নিয়মিত মামলার মাধ্যমে টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর করার কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।
এরআগে গত ১৪ জুন ২০২২ তারিখ পর্যন্ত গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে কক্সবাজার ব্যাটালিয় (৩৪ বিজিবি) এর অধিনস্থ রেজু আমতলী বিওপির দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় জলিলের গোদা আম বাগান নামক স্থানে অভিযান চালিয়ে তিন হাজার ৯০০ পিস ইয়াবাসহ উখিয়া কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প-১, ব্লক বি এর নবী হোসনের ছেলে মোঃ শফিউল্লাহ (৩০) কে আটক করা হয়। যার মুল্য ১১ লাখ ৭০ হাজার টাকা। পরবর্তীতে আটককৃত রোহিঙ্গা মাদক পাচারকারীর দেয়া তথ্যের ভিতিত্তে গত ১৫ জুন ঘুমধুম বিওপি'র সীমান্ত এলাকায় বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে  ৮ কোটি ৫৮ লাখ ৩০ হাজার টাকা মুল্যের  ২ লাখ ৮৬ হাজার ১০০ পিস ইয়াবাসহ সর্বমোট ৮ কোটি ৭০ লাখ টাকার দুই লাখ নব্বই হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করে।  আটককৃত মাদক কারবারীকে ইয়াবাসহ উখিয়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। এব্যাপারে মাদক আইনে মামলা হয়েছে।