কক্সবাজার শহরে ট্রাফিক পুলিশের অভিযানে গাড়ি আটক ও জরিমানা

কক্সবাজার শহরে ট্রাফিক পুলিশের অভিযানে গাড়ি আটক ও জরিমানা
ছবি: সংগৃহীত

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, কক্সবাজার।। কক্সবাজার শহরের কলাতলি ডলফিন মোড়সহ আশপাশ এলাকায় সড়কে অবৈধ গাড়ী পার্কিংসহ যানজন নিরসন এবং গাড়ী বৈধ কাগজপত্রের মেয়াদ যাচাইয়ের অভিযান শুরু করেছে ট্রাফিক পুলিশ।

পুলিশ সুপার মো. মাহফুজুল ইসলাম, পিপিএম (বার) এর নির্দেশে এই অভিযান চালান 

কলাতলি ডলফিন মোড়ে ট্রাফিক পুলিশ বক্সে দায়িত্বরত কক্সবাজার শহর যানবাহন নিয়ন্ত্রণ শাখার ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (টিআই) নির্মল দেবনাথ। 

মঙ্গলবার ৬ সেপ্টেম্বর  সকালে চালানো  অভিযানে টেকনাফ-কক্সবাজার মেরিন ড্রাইভ সড়কে ভাড়ায় চালিত কয়েকটি প্রাইভেট কার, শহরেমুখী ইজিবাইক (টমটম), সিএনজি অটোরিকশা আটক করা হয়েছে। যানবাহন থেকে জরিমানা আদায় করা হয়েছে ১২ হাজার টাকা।
ট্রাফিক ইন্সপেক্টর নির্মল দেবনাথ জানান, যত্রতত্র পার্কিং, রংসাইডে গাড়ী চালানো ও কাগজপত্র না থাকার কারণে এসব গাড়ি জব্দ  ও মামলা করা হয়েছে। অবৈধ যানবাহনের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি ।

কক্সবাজারের ব্যস্ততম ডলফিন মোড়ে কলাতলি সি-বিচ রোডের দুই পাশে অবৈধ কার পার্কিংয়ের জন্য যানজট লেগেই আছে। ১৫০টি কার (ব্যক্তিগত গাড়ী) কক্সবাজার- টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কে অবাধে ভাড়ায় চলাচল করছে। 
প্রাইভেট হিসেবে লাইসেন্স নিলেও সব মেয়াদোত্তীর্ণ। এসব প্রাইভেট কারগুলোর প্রত্যেকটিই বাণিজ্যিকভাবে চালানো হচ্ছে।  মেরিন ড্রাইভ সড়কে শুধু যাত্রী পরিবহণই নয়, অভিযোগ উঠেছে ইয়াবা পাচারেরও এসব কার ব্যবহৃত হচ্ছে। ইতোমধ্যে জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশের হাতে এবং র্যাবের হাতে ইয়াবাসহ অসংখ্য কার আটক হয়েছে।
কলাতলি ডলফিন মোড়ে সড়কে অবৈধ গাড়ীর অবৈধ পার্কিং দিয়ে দৈনিক লাইন খরচ ও ভর্তি ফির নামে লাইন পরিচালনাকারী সিন্ডিকেট মাসে ২০ লাখ টাকা চাঁদাবাজির ঘটনাও ঘটাচ্ছে।
কলাতলি ডলফিন মোড়ে ট্রাফিক পুলিশ বক্সে দায়িত্বরত কক্সবাজার শহর যানবাহন নিয়ন্ত্রণ শাখার ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (টিআই) বলেছেন, প্রাইভেট কার গাড়ির পৃথক তিনটি পার্কিং বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।