কক্সবাজার সৈকতে বন্ধুকে বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ গেল বন্ধুর

কক্সবাজার সৈকতে বন্ধুকে বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ গেল বন্ধুর
ছবিঃ সংগৃহীত

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, কক্সবাজার, ২৮ জুন।। কক্সবাজার সৈকতের কবিতা চত্বতে বন্ধুদের সাথে ফুটবল খেলা শেষে সাগরে গোসল করতে নেমে ভেসে যাওয়া বন্ধুকে বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ গেল ইসরার হাসনাইন নামের এক ছাত্রের। গত রবিবার সাগরে ভেসে যাওয়া বন্ধুকে বাঁচাতে গিয়ে নিখোঁজ হন ইসরার।

সোমবার (২৮ জুন) সকাল ১০ টার দিকে সৈকতে শৈবাল পয়েন্টে ভেসে আসে তার মরদেহ। পরে স্থানীয় লাইফগার্ড, ভাসাজালের জেলেদের সহায়তায় মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। 
নিহত ইসরার কক্সবাজার সরকারী বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ শ্রেনীর বিজ্ঞান বিভাগের মেধাবী ছাত্র ও শহরের বিকেপাল সড়কস্থ শের আলী মিয়া লেন এলাকার আলহাজ্ব আমান উল্লাহর ছেলে।

রবিবার (২৭ জুন) সকালে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে ভেসে যাওয়া বন্ধুকে উদ্ধার করতে গিয়ে নিখোঁজ হন ইসরার হাসনাইন (১৫)।
জানা গেছে, গত রবিবার (২৭ জুন) সকালে ইসরারসহ ১৪ জন বন্ধু মিলে সৈকতের কবিতা চত্বর সংলগ্ন বালিয়াড়িতে ফুটবল খেলতে যান। খেলার এক পর্যায়ে ইসরারসহ ইয়াসিন আরাফাত ও আফিফ হোসাইন তাহসিন মিরকাত নামের দুই বন্ধু সাগরে গোসল করতে নামেন। এসময় দুই বন্ধু ঢেউয়ের তোড়ে ভেসে যায়। 
ঢেউয়ের তোড়ে ডুবে যাওয়া বন্ধুকে বাঁচাতে গিয়ে ইসরার আর কুলে ফিরতে পারেনি। লাইফ গার্ড কর্মী ও বন্ধুরা ইয়াসিন ও আফিফকে মুমূর্ষু অবস্থায় জীবিত উদ্ধার করে।
তবে বন্ধুদের ঠিকই জীবিত উদ্ধার করা গেলেও ইসরার সাগরে ভেসে গিয়ে নিখোঁজ হয়। 
সোমবার (২৮ জুন) সকাল পৌনে ১০ টার দিকে সৈকতের শৈবাল পয়েন্টে ভেসে আসা মরদেহটি দেখতে পায় স্থানীয়রা।
পরে পুলিশ ও লাইফগার্ড কর্মীদের জানানো হয়।
কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশের পরিদর্শক পিন্টু রায় বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে স্থানীয় লাইফগার্ড, ভাসাজালের জেলেদের সহায়তায় মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে মরদেহটি পরিবারের সদস্য কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।