কক্সবাজার হোটেলে একদিনে দুই তরুণী পর্যটকের মৃত্যু : আটক-৩

কক্সবাজার হোটেলে একদিনে দুই তরুণী পর্যটকের মৃত্যু : আটক-৩
ছবি: সংগৃহীত

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন,  কক্সবাজার।।কক্সবাজার শহরে ও ইনানীতে বুধবার একদিনে দুই তরুণী  পর্যটকের মৃত্যু হয়েছে। 

বুধবার সন্ধ্যায় উখিয়া ইনানী তারকা মানের আবাসিক হোটেলে রয়েল টিউলিপে ও দুপুরে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে তাদের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় স্বামী পরিচয় দেওয়া এক যুবক সহ তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।

ইনানীর তারকা হোটেল রয়েল টিউলিপ থেকে বুধবার সন্ধ্যায় কক্সবাজার সদর হাসপাতালে আনা হলে এ তরুণীকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, হোটেল রয়েল টিউলিপের একটি কক্ষে অবস্থান নেওয়া যুবকের সঙ্গে থাকা তরুণীটি বুধবার বিকালে অসুস্থ হয়ে পড়লে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে আনা হয়। এসময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

রয়েল টিউলিপের নিরাপত্তা কর্মকর্তা মেজর (অবসরপ্রাপ্ত) রফিকুল ইসলাম বলেন, বুধবার সকালে মারফুয়া খানম (২৩) ও নাছির উদ্দিন (২৬) নামে দুইজন স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে হোটেল রয়েল টিউলিপে উঠেন। এরপর তারা ব্যাগসহ অন্যান্য জিনিসপত্র হোটেল কক্ষে রেখে সমুদ্র সৈকতে নামেন। দুপুরে খাবার শেষে নিজেদের কক্ষে অবস্থান নেন দুইজন। এর কিছুক্ষণ পর তরুণীর শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যার কথা অবহিত করা হলে তাকে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে নেওয়ার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিকুল ইসলাম আরও বলেন, ওই তরুণীর মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে স্বামী পরিচয় দেওয়া নাছির উদ্দিনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা প্রেমিক-প্রেমিকা বলে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন।
তিনি আরও বলেন, ওই তরুণীর অভিভাবকদের কাছে খবর পাঠানো হয়েছে। তারা কক্সবাজারে পৌঁছার পর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
এর আগে বুধবার দুপুরে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে চারদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর লাবনী আকতার নামের এক পর্যটক তরুণীর মৃত্যু হয়। 
কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মো. সেলিম উদ্দিন জানিয়েছেন, গত ১১ মে ৪ বন্ধু সহ ওই তরুণী  কক্সবাজার বেড়াতে আসেন। তারা কলাতলীর বীচ হলি ডে নামের একটি আবাসিক হোটেল অবস্থান নেন। সেখানে ১৪ মে অসুস্থ হলে তরুনী লাবনী আকতারকে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে ১৬ মে তরুণীকে আইসিইউতে হস্তান্তর করা হয়। 
এসময় তার সঙ্গে আসা ৪ জনের মধ্যে ২ জন স্বীকার করেন তারা অতিরিক্ত মদ্যপান করেছিল। এ ঘটনায় ২ জনকে আটক করা হলেও অপর ২ জন পালিয়ে যায়।
তিনি আরও জানান, গত ৪ দিন জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধিন থাকার পর বুধবার সাড়ে ১২টায় তরুণী মৃত্যু হয়। ইতোমধ্যে তরুনীর পিতা সহ অভিভাবকরা কক্সবাজারে অবস্থান করছেন। এব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
ওসি তদন্ত আরও জানান, আটক ২ জনকে এ ঘটনায় ৫৪ ধারায় আদালতে পাঠানো হয়। আদালত তাদের কারা হেফাজতে রেখেছে। তরুনী মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।