কক্সবাজারে হোটেল স্টাফ কোয়ার্টার থেকে কলেজ ছাত্রের লাশ উদ্ধার

কক্সবাজারে হোটেল স্টাফ কোয়ার্টার থেকে কলেজ ছাত্রের লাশ উদ্ধার
ছবি: সংগৃহীত

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার,৭ আগষ্ট।। কক্সবাজার শহরের ‘সী কক্স’ আবাসিক হোটেলের স্টাফ কোয়ার্টার থেকে খালেদ আশরাফ বাপ্পি (২৪) নামে এক কলেজ ছাত্রের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে পুলিশের ধারণা, ছাত্রটি আত্মহত্যা করেছে। আর পরিবারের দাবী,  বাপ্পী কখনো আত্মহত্যা করতে পারে না। তাকে হত্যাই করা হয়েছে। 

নিহত খালেদ আশরাফ বাপ্পি কক্সবাজার সদর উপজেলার  বাংলাবাজার কাজীর রোড এলাকার বাসিন্দা ছিলেন। তিনি কক্সবাজার সরকারি কলেজের অনার্স তৃতীয় বর্ষের ছাত্র। একই সঙ্গে তিনি ‘সী কক্স’ আাবাসিক হোটেলে খণ্ডকালীন চাকরি করতেন।
শনিবার (৬ আগস্ট) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। 
হোটেল ‘সী কক্সের রিজার্ভেশন অফিসার অর্ণব বলেন, হোটেল থেকে কিছু দূরে হোটেলের স্টাফদের কোয়ার্টার। ওখানে স্টাফরা রাত্রিযাপন করেন। শনিবার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে ডিউটি শেষ করে বাপ্পি স্টাফ কোয়ার্টারে চলে যান। পরে ফাঁস লাগানো অবস্থায় অন্যান্য স্টাফরা কোয়াটার থেকে তাকে উদ্ধার করে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 
কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মো. সেলিম উদ্দিন জানান, হোটেল ‘সী কক্সের’ ৫ তলা ভবনের দ্বিতীয় তলায় এক ব্যক্তিকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান সেখানকার কর্মীরা। পরে তারা ওই ব্যক্তিকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মারা যাওয়া ব্যক্তির লাশ কক্সবাজার সদর হাসপাতাল থেকে পুলিশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছে। প্রাথমিকভাবে এটি আত্মহত্যা বলে জানতে পারি। ময়না তদন্তের পর বিস্তারিত জানা যাবে। এরপরও যদি কোনো অভিযোগ পাই তবে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
এদিকে, কলেজ ছাত্র বাপ্পীর রহস্যজনক মৃত্যুর পিছনে তার ব্যবসায়িক পার্টনার মুফিজ নামের এক ব্যক্তির হাত আছে বলেই এমনটা দাবি করেছে নিহতের পরিবার।