কুমিল্লা সিটিতে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন : গণনা চলছে

কুমিল্লা সিটিতে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন : গণনা চলছে
ছবিঃ সংগৃহীত

শান্তিপূর্ণ উৎসবমুখর পরিবেশে কুমিল্লা সিটিতে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। এখন কেন্দ্রে কেন্দ্রে চলছে ভোট গণনা।
সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে বিকেল ৪টা পর্যন্ত টানা ভোটগ্রহণ চলে। নির্বাচন চলাকালীন  কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। এই সিটিতে সুষ্ঠু, অবাধ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণের লক্ষ্যে নির্বাচন কমিশন সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করে।
সিটি কর্পোরেশন গঠিত হওয়ার পর এটি তৃতীয়বারের ভোট। এর আগে দু’বার ভোটে বিএনপি সমর্থিত মনিরুল হক সাক্কু মেয়র নির্বাচন হন। এবার নৌকার একক প্রার্থী থাকলেও বিএনপি সমর্থিত দুইজন প্রার্থী নির্বাচনের মেয়র পদে লড়াই করায় নৌকার প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত কিছুটা বাড়তি সুবিধা পাবেন এমন মনে করছেন কুসিকের সাধারণ ভোটাররা। এ ছাড়া অতীতের যে কোন সময়ের চেয়ে কুমিল্লায় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক অবস্থান অনেক বেশি শক্তিশালী অবস্থানে থাকায় দলীয় প্রার্থীর জয়ের ব্যাপারে অনেকটা নিশ্চিত।
আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত, বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কু ও বিএনপি’র অপর বহিষ্কৃত মেয়র প্রার্থী নিজাম উদ্দিন কায়সারসহ মেয়র প্রার্থী ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা সবাই নির্বাচনের পরিবেশ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা এবং নিরাপত্তা ব্যবস্থায় সন্তোষ করেছেন।
কুসিক নির্বাচনে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় বিভিন্ন স্তরের ৩ হাজার ৬০৮ জন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। বসানো হয়েছে সিটির বিভিন্ন পয়েন্টে ৭৫টি চেকপোষ্ট। ভ্রাম্যমান মোবাইল টিম রয়েছে ১০৫টি, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) মোতায়েন করা হয় ১২ প্লাটুন, র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যটালিয়ন রয়েছে ৩০টিম, অর্ধশত নির্বাহী ও ৯ জন বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট। এর বাইরে সাধারন ও গুরুত্বপূর্ণ ভোটকেন্দ্রে রয়েছে যথাক্রমে ২২ ও ২৪ জন করে পুলিশ, আনসার, ব্যাটনিয়ান আনসারসহ গ্রম পুলিশের সদস্য। বলা যায়, পুরো সিটি এলাকা নিরাপত্তার চাদরে মোড়া রয়েছে। এই প্রথমবারের মতো কেন্দ্রের বাইরে-ভিতরে বসানো হয় সিসি ক্যামেরা।
কুমিল্লা সিটিতে এবারের নির্বাচনে ৫ মেয়র প্রার্থীসহ সাধারণ ও সংরক্ষিত মিলিয়ে ১৪৯জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। কুমিল্লা নির্বাচনে এবার মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ২৯ হাজার ৯২০ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ১২ হাজার ৮২৬ জন। আর নারী ভোটার ১ লাখ ১৭ হাজার ৯২ জন। এ ছাড়া তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার রয়েছেন দুইজন। এবারে ২২ হাজার নতুন ভোটার। (বাসস)