গাইবান্ধায় পত্রিকায় অগ্নিসংযোগ : প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাতে সংবাদ সম্মেলন

গাইবান্ধায় পত্রিকায় অগ্নিসংযোগ : প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাতে সংবাদ সম্মেলন
ছবি: সংগৃহীত

আবু তাহের, স্টাফ রিপোর্টার।। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের গাইবান্ধা জেলার ৭ উপজেলা ও গাইবান্ধা পৌরসভা শাখার কমিটি গঠন নিয়ে ঢাকা থেকে প্রকাশিত দৈনিক ভোরের পাতা পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ করায় বিক্ষুব্ধ আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীরা পত্রিকাটিতে অগ্নিসংযোগ করেছে।

 আজ ৩ জুলাই রবিবার বিকেলে জেলা শহরের কাচারী বাজার মোড়ে নেতাকর্মীরা সমবেত হয়ে  এ বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। এর আগে তারা গাইবান্ধা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিষয়টির প্রতিবাদ ও তীব্র নিন্দা জানান। 


সংবাদ সম্মেলনে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু বকর সিদ্দিকের নেতৃত্বে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মৃদুল মোস্তাফিজ ঝন্টু।

 এসময় জেলা, উপজেলা ও পৌর আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি রেজাউল করিম রেজা, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আব্দুল লতিফ প্রধান, সুন্দরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল সরকার আলম লেবু, ফুলছড়ি জিএম সেলিম পারভেজ, সাঘাটা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এ্যাড. সামসীল আরেফিন টিটু, সাধারণ সম্পাদক নাসিরুল আলম স্বপন, পলাশবাড়ী উপাধ্যক্ষ শামিকুল ইসলাম লিপন, সাধারণ সম্পাদক  তৌহিদুল ইসলাম মন্ডল, সাদুল্লাপুর উপজেলা সভাপতি অধ্যাপক আব্দুল জলিল,সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক শহিদুল্লাহিল কবির ফারুক, গাইবান্ধা পৌর শাখার সভাপতি ওমর ফারুক রুবেল,সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন, জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি রণজিত বকসী সূর্য্য,সাংগঠনিক সম্পাদক পিয়ারুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক সাইফুল আলম সাকা, উপ- প্রচার সম্পাদক তানজিমুল ইসলাম জামিল প্রমুখ। নবগঠিত কমিটির অন্যান্য নেতৃবৃন্দসহ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক নেতাকর্মীরা এসময় উপস্থিত ছিলেন। 

এ সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করা হয়, দৈনিক ভোরের পাতা পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদে বিএনপি ও জামায়াত পন্থী অনুপ্রবেশকারীদের অর্থের বিনিময়ে দলে বিভিন্ন পদে পদায়ন করা হয়েছে, যা আদৌও সত্য নয়। গাইবান্ধা জেলার বর্তমান ৭টি উপজেলা ও পৌর কমিটিতে কোন অনুপ্রবেশকারী নেই বা এসব কমিটি গঠনে আর্থিক লেনদেনের কোন কোন সম্পৃকতা নেই। দলের জেলা শাখার নেত্রীবৃন্দের পরামর্শে ও কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সিদ্ধান্তে গঠিত কমিটি যে কোন সময়ের চেয়ে আওয়ামীলীগ জেলা ও উপজেলা সুসংগঠিত হচ্ছে। আগামী দিনে বিরোধী দলের যে কোন চ্যালেঞ্জ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মোকাবেলার জন্য প্রস্তুত রয়েছে সংগঠনের নবগঠিত কমিটির নেতাকর্মীরা। আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাখাওয়াত হোসেন শফিকের জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে একটি কুচক্রি মহল ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়ে বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় সংবাদ পরিবেশ করে আওয়ামীলীগের ভাবমুর্তি নষ্ট করার পায়তারায় লিপ্ত রয়েছে। এ সংবাদ সম্মেলনে আরো উল্লেখ করা হয়, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ গাইবান্ধা জেলা শাখা ৭টি উপজেলা, ৩ টি পৌর শাখার কমিটির কার্যক্রম গতিশীল রয়েছে যে কোন সময়ের চেয়ে সবল ও সুনামধন্য জনপ্রিয় নেতৃত্ব পেয়েছে শাখা গুলো।  আগামী দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে গাইবান্ধার ৫টি আসনেই নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ের লক্ষ্যে জেলা আওয়ামীলীগ ও ৭টি উপজেলা শাখার নবগঠিত কমিটির নেতাকর্মীরা কাজ করে যাচ্ছেন। 

উল্লেখ্য,গাইবান্ধা জেলার ৭ টি উপজেলায় ও গাইবান্ধা পৌর শাখার আওয়ামীলীগের নব গঠিত কমিটি গুলোতে বিতর্কিত ব্যক্তিদের অপসারণ করে উচ্চ শিক্ষিত ও জনপ্রিয় ব্যক্তিরা নেতৃত্বে আসায়, গাইবান্ধা জেলার রাজনীতির মাঠের আওয়ামীলীগের যোগ্য নতুন নেত্রীত্ব কে ঘিরে আশার আলো দেখছেন স্থানীয় রাজনৈতিক বিশ্লেষকগণ ও সর্বসাধারণ মানুষ।