গাইবান্ধায় মহানবীকে নিয়ে কটুক্তি, শিক্ষককে পুলিশে সোর্পদ করলো এলাকাবাসী

গাইবান্ধায় মহানবীকে নিয়ে কটুক্তি, শিক্ষককে পুলিশে সোর্পদ করলো এলাকাবাসী

তৌহিদুল ইসলাম, নিউজ করেসপনডেন্ট।। গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার নলডাঙ্গায় বিশ্বনবীকে নিয়ে কটূক্তি ও ইসলাম বিরোধী মন্তব্য করায় সোনার বাংলা বিদ্যা পিঠের পরিচালক সুলতান আরিফিনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) দুপুরে সাদুল্লাপুর থানায় এ মামলা হয়।

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে সাদুল্লাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার জানান, বাংলাদেশ দণ্ডবিধি আইনের ২৯৫ এর ক ধারা মোতাবেক ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানা ও বিশ্বাস ভঙ্গ করায় সুলতান আরিফিনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। বিকেলে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলা কারাগরে পাঠানো হবে।

প্রসঙ্গত, বুধবার (১৫ জুন) বিশ্বনবীকে নিয়ে কটূক্তি ও ইসলাম বিরোধী মন্তব্য করায় সুলতান আরিফিন নামে এক স্কুল পরিচালককে পুলিশে সোর্পদ করেছে এলাকাবাসী। পরে সাদুল্লাপুর উপজেলার নলডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন বাজারস্থ বাসা থেকে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। এর আগে সুলতান আরিফিনকে ঘেরাও করে রাখেন মুসল্লিরা। তারা বিক্ষোভ করে ডিগ্রি কলেজ সড়ক অবরোধ করে। পরিস্থিতি উত্তপ্ত হওয়ায় বন্ধ হয়ে যায় আশপাশের দোকানপাট।

জানা যায়, কয়েক দিন ধরে আরিফিন হযরত মুহাম্মদ (সা.) কে কটূক্তি এবং ইসলাম বিরোধী সমালোচনাসহ অবমাননাকর কথা বলছিলেন। এ নিয়ে মুসল্লিসহ অনেকে প্রতিবাদ করলেও আরিফিন তাতে কর্ণপাত করেননি। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভ ও উত্তেজনা দেখা দেয়। বুধবার দুপুরে স্থানীয় লোকজন আরিফিনের সঙ্গে কথা বলতে তার বাসায় যায়। এ সময় নিজের মন্তব্য-ব্যাখা সঠিক বলে তর্কে জড়ান তিনি। পরে খবর পেয়ে আশপাশের লোকজন বিক্ষুব্ধ হয়ে তার বাড়ি ঘেরাও করে। 

এলাকাবাসীর অভিযোগ, নলডাঙ্গা ইউনিয়নের দশলিয়া গ্রামের মৃত মজিদ মিয়ার ছেলে সুলতান আরিফিন কোচিং সেন্টারের পরিচালক। ইসলাম নিয়ে বাজে মন্তব্য ছাড়াও তিনি বিসমিল্লাহ ও আলহামদুলিল্লাহ নিয়ে অপব্যাখা করেন। এ ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়ে অভিযুক্ত আরিফিনের কঠোর শাস্তির দাবি করেন তারা।