চট্টগ্রামের পটিয়ার ভোট কেন্দ্র নয়, যেন রণক্ষেত্র  ১জন নিহত,

চট্টগ্রামের পটিয়ার ভোট কেন্দ্র নয়, যেন রণক্ষেত্র  ১জন নিহত,
ছবিঃ সংগৃহীত
এম. মতিন, চট্টগ্রাম প্রতিনিধি।। পৌরসভা নির্বাচনের চতুর্থ ধাপে দেশের ৫৫টি পৌরসভায় আজ অনুষ্ঠিত হচ্ছে ভোট গ্রহণ। তারই ধারাবাহিকতায় চট্টগ্রামের পটিয়া পৌরসভায়ও অনুষ্ঠিত হচ্ছে ইভিএমে ভোট গ্রহণ। এই ভোট গ্রহণকে কেন্দ্র করে পটিয়া পৌরসভার দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ ঘটনা ঘটেছে। এতে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে এক কাউন্সিলর প্রার্থীর ভাই নিহত হয়েছেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল থেকে উপজেলার বিভিন্ন  ওয়ার্ডে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্পন্ন হচ্ছিল। হঠাৎ সকাল ১২ টার দিকে ৮নং ওয়ার্ডে কেন্দ্র দখল নিয়ে দক্ষিণ গোবিন্দারখীল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কেন্দ্রের বাইরে কাউন্সিলর প্রার্থী আবদুল মান্নান ও সারওয়ার কামালের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। সংঘর্ষের এক পর্যায়ে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, ছুরিকাঘাত ও গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। এতে ছুরিকাঘাতে আবুল কাসেম (২৫) আবদুল মাবুদ (৫০) ও আনসার আলী নামে ৩ জন গুরুত্বর আহত হন। 
পরে আহতদের চিকিৎসার জন্য পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আবদুল মাবুদ (৫০) মারা যান।
আহত কাসেম ও আনসার আলীকে উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।
কাউন্সিলর প্রার্থী আবদুল মান্নান ও সারওয়ার কামাল দু'জনেই আওয়ামী লীগের রাজনীতি সাথে জড়িত।
 
নিহত আবদুল মাবুদ ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী আবদুল মান্নানের ছোট ভাই ও আবদুস সোবহানের পুত্র।
এছাড়াও আনসার ভিডিপি ক্লাবে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। পরে পুলিশ দুই কাউন্সিলর প্রার্থী মো. আবদুল মান্নান ও সরোয়ার কামাল রাজিবকে নিজেদের হেফাজতে নেয়। এর পর কেন্দ্রে র্যাব, বিজিবি, আনসারসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী অবস্থান নিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
এদিকে, ১ নং ওয়ার্ডে ডালিম প্রতীকের প্রার্থী আবদুল খালেককে অপহরণ করা হয়েছে বলে দাবি করছে তার পরিবার।
পটিয়া থানার ওসি রেজাউল করিম মজুমদার বলেন, 'কাউন্সিলর প্রার্থী আবদুল খালেক অপহরণ নাকি আত্মগোপন তা এখনো স্পষ্ট নয়। তবে দক্ষিণ গোবিন্দারখীল কেন্দ্রের বাইরে দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সংঘর্ষের সময় আবদুল মাবুদ নামে একজন ছুরিকাঘাতে আহত হন। আহত অবস্থায় আবদুল মাবুদকে পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানেই তার মৃত্যু হয়। লাশ এখনও মর্গে পাঠানো হয়নি।'
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পটিয়া সার্কেল) মো. তারিকুর রহমান জানিয়েছেন, ইভিমের মাধ্যমে পটিয়া পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে । সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্তও প্রশাসনের লোকজন ভোট কেন্দ্রে দায়িত্ব পালন করবেন। সুষ্ঠু ও শান্তিপুর্ণ নির্বাচন সম্পন্ন করতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।
পটিয়ায় মোট ভোটার ৩৯ হাজার ৭৮৭। পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে ১৮টি ভোট কেন্দ্র রয়েছে। তার মধ্যে মহিলা ১৮ হাজার ৮৬২ ও পুরুষ ভোটার ২০ হাজার ৯২৫।