চরফ্যাশনে স্কুল পড়ুয়া কিশোরের লাশ উদ্ধার

চরফ্যাশনে স্কুল পড়ুয়া কিশোরের লাশ উদ্ধার
ছবি: সংগৃহীত

মিলি সিকদার।। ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার দক্ষিণ আইচায় ৮ম শ্রেণীতে পড়ুয়া ইয়ামিন (১৬) নামের এক কিশোরের লাশ উদ্ধার করেছে দক্ষিণ আইচা থানা পুলিশ।

সোমবার (২১ নভেম্বর)  দিবাগত রাত সাড়ে দক্ষিণ আইচা থানার  চরমানিকা ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড দক্ষিণ চর আইচা গ্রামে মোল্লা বাড়িতে   এ ঘটনা ঘটে।   

ইয়ামিনের মামা মো. হাছান আলী জানান, আমার ভাগিনা ইয়ামিনকে হত্যা করা হয়েছে এখনো পর্যন্ত দক্ষিণ আইচা থানা পুলিশ কোনো আসামিকে গ্রেপ্তার করছে না। তারা আমাদের কোনো মামলা নিচ্ছে না আমি ভোলা এসপি মহোদয়ের কাছে এর সঠিক বিচার চাই। তিনি আরো জানান, একই বাড়ির লাবনীর সঙ্গে ইয়ামিনের কোনো প্রেমের সম্পর্ক ছিল না। ইয়ামিনের চাচাতো ভাই রাকিবের সঙ্গে লাবনীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ঘটনার দিন সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার দিকে লাবনীর বাবা কামাল হোসেন রাকিবের মাধ্যমে ঘর থেকে ইয়ামিনকে বাড়ির সামনে বেড়িবাঁধের ওপর ডেকে নেয়। এরপর রাকিব ও কামাল ইয়ামিনকে জুতাপেটা ও মারধর করে তার মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়।  রাত ৮টার দিকে বাড়ির এক নারী দেখতে পান গলায় রশি পেঁচানো ইয়ামিনের লাশ একটি গাছের সঙ্গে ঝুলে আছে। এরপর তারা পুলিশকে খবর দেয়।

ওই ওয়ার্ডের চৌকিদার মো. হারুন জানান, ইয়ামিনের সঙ্গে লাবনীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। লাবনীর বাবা কামাল হোসেন তাদের প্রেমের সম্পর্ক জানতে পেরে ঘটনার দিন সন্ধ্যায় ইয়ামিনকে বাড়ির সামনের বেড়িবাঁধের ওপর ডেকে নিয়ে জুতাপেটা ও ব্যাপক মারধর করে। তাদের মারধরে বেড়িবাঁধের ওপর শুয়ে পড়েন ইয়ামিন। এ ঘটনার ঘন্টাখানেক পর বাড়ির পাশের একটি গাছে তার ঝুলন্ত লাশ দেখতে পাওয়া যায়। পরে দক্ষিণ আইচা থানা পুলিশ ইয়ামিনের লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান।

এ ঘটনার পর রাকিব, লাবনী ও লাবনীর বাবা কামালসহ তাদের ঘরের সকলে আত্মগোপনে রয়েছেন। 

দক্ষিণ আইচা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. নেসার উদ্দিন জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে ইয়ামিনের লাশ তাদের ঘরে দেখতে পান। তার গলায় দাগ রয়েছে।  সুরতহাল প্রতিবেদন অনুযায়ী এটি একটি অস্বাভাবিক মৃত্যু বলে জানিয়েছেন। তিনি আরও জানান, লাবনীর সঙ্গে ইয়ামিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল এমন একটি গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। ইয়ামিনের পরিবারও ঘটনার প্রকৃত কারণ উদঘাটনের দাবি জানিয়েছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।
 এ ঘটনায় আপাতত দক্ষিণ আইচা থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঘটনাটির তদন্ত চলমান রয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পাওয়া গেলে ঘটনাটির প্রকৃত কারণ জানা যাবে।