চালু হচ্ছে ‘রংপুর-বাংলাবান্ধা এক্সপ্রেস’ বাস সার্ভিস

চালু হচ্ছে ‘রংপুর-বাংলাবান্ধা এক্সপ্রেস’ বাস সার্ভিস
ছবিঃ সংগৃহীত

তৌহিদুল ইসলাম।।স্টাফ রিপোর্টার।।রংপুর-নীলফামারী-বাংলাবান্ধা রুটে সোমবার (০৮ নভেম্বর) থেকে নতুন ২০টি বাস চলাচল শুরু হচ্ছে। এ অঞ্চলের মানুষরা যাতে পঞ্চগড়ের বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর হয়ে সহজে ভারতে যেতে পারেন, এজন্য উদ্যোগ নিয়েছে বাস মালিক সমিতি। পাশাপাশি বিভাগীয় শহর রংপুরে চিকিৎসাসেবা প্রত্যাশী মানুষদের পরিবহন সুবিধা বাড়ানোর বিষয়টিকে গুরুত্ব সহকারে দেখছেন মালিক সমিতির নেতারা। তাদের দাবি, এই বাস সার্ভিসের মাধ্যমে সময় ও ভাড়া সাশ্রয় হবে। একইসঙ্গে যাত্রী হয়রানি ও দুর্ভোগ কমবে।  

রংপুর বিভাগে জনসংখ্যা প্রায় দেড় কোটি। প্রতিদিন বিভাগীয় শহরে নানান প্রয়োজনে বিভিন্ন জেলার মানুষকে আসতে হয়। বিশেষ করে রংপুরের বিভিন্ন উপজেলা ছাড়াও গাইবান্ধা, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, নীলফামারী, পঞ্চগড়, দিনাজপুর ও ঠাকুরগাঁও জেলা থেকে শিক্ষা, চিকিৎসা ও ব্যবসার প্রয়োজনে রংপুর শহরে মানুষের যাতায়াত আগের চেয়ে অনেক বেড়েছে।

তবে রংপুর থেকে পঞ্চগড়ের বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর পর্যন্ত চলাচলরত বাসের সংখ্যা কম হওয়াতে এ অঞ্চলের মানুষকে দীর্ঘদিন ধরে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এবার সেই দুর্ভোগ কমনোসহ চিকিৎসাসেবা ও পর্যটন শিল্পমুখী মানুষের যাতায়াত সুবিধা বাড়ানোর যৌথ উদ্যোগ ‘রংপুর-বাংলাবান্ধা এক্সপ্রেস’ বাস সার্ভিস। ৩০ মিনিট পরপর ছেড়ে যাওয়া এসব বাস রংপুর থেকে নীলফামারী হয়ে পঞ্চগড়ের বাংলাবান্ধা পর্যন্ত চলাচল করবে।

সোমবার (০১ নভেম্বর) নীলফামারীতে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে নতুন বাস সার্ভিস চালুর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ বৈঠকে রংপুর, পঞ্চগড় ও নীলফামারী জেলার বাস মালিক সমিতির নেতারা অংশ নেন। তাদের সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছে এ অঞ্চলের সাধারণ মানুষ। কোনো কারণে যাতে নতুন এই পরিবহন সুবিধা থমকে না যায়, সেজন্য যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান যাত্রীদের।

নতুন এই বাস সার্ভিস প্রসঙ্গে পঞ্চগড় জেলা বাস মিনিবাস মালিক সমিতির সভাপতি মতিয়ার রহমান জানান, আগামী ৮ নভেম্বর থেকে রংপুর-বাংলাবান্ধা এক্সপ্রেস নামে ২০টি বাস চলাচল করবে। এসব বাস পঞ্চগড় থেকে নীলফামারী হয়ে রংপুরে যাবে। প্রতিদিন পঞ্চগড় থেকে সকাল সোয়া ৭টা থেকে শুরু করে ৩০ মিনিট পরপর বিকেল পৌনে পাঁচটা পর্যন্ত চলাচল করবে। অপরদিকে রংপুরে সকাল ৮টা থেকে সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত ৪০ মিনিট পর পর পঞ্চগড়ের উদ্দেশে বাসগুলো ছেড়ে আসবে।

এই রুট বেছে নেওয়ার কারণ হিসেবে তিনি বলেন, তিন জেলার মানুষ অল্প সময়ের মধ্যে স্বল্প ভাড়ায় তাদের গন্তব্যে পৌঁছাবে। বিশেষ করে পঞ্চগড়ের মানুষ বিভাগীয় শহর রংপুরে গিয়ে তাদের চিকিৎসা, শিক্ষা ও অফিস-আদালতসহ অন্যান্য কাজের প্রয়োজনে দ্রুত যাতায়াত করতে পারবেন। বিআরটিসিসহ অন্যান্য জেলায় যে বাসগুলো প্রধান ও মহাসড়ক দিয়ে চলাচল করে, তার তুলনায় এসব গাড়ির মান অনেক ভালো ও আরামদায়ক হবে। যাত্রীরা নতুন বাস সার্ভিসে অনেক বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করবেন। অন্য রুটে চলাচলরত গাড়ির তুলনায় নতুন বাস সার্ভিসে পঞ্চগড় থেকে রংপুরে পৌঁছাতে যাত্রীদের অন্তত এক ঘণ্টা কম লাগবে।    

অন্যদিকে রংপুর জেলা মোটর মালিক সমিতির সহসভাপতি আব্দুল মান্নান বলেন, চিকিৎসা নিতে আসা মানুষের যাতায়াতে দুর্ভোগ লাঘব ও গরিব মানুষের কষ্ট লাঘবে দীর্ঘদিন ধরে আমরা চেষ্টা করছিলাম রংপুর-বাংলাবান্ধা রুটে বাস সার্ভিস চালু করব। অবশেষে তা ৮ নভেম্বর থেকে কার্যকর হতে যাচ্ছে। পঞ্চগড় ও নীলফামারী থেকে ছয়টি করে এবং রংপুরের আটটিসহ সর্বমোট ২০টি বাস চলাচল করবে। রংপুর থেকে ১২৫ কিলোমিটারের পথ বাংলাবান্ধা। এই রুটে রংপুর থেকে জনপ্রতি যাত্রীকে ১৭০ টাকা ভাড়া দিতে হবে। সাড়ে তিন ঘণ্টায় রংপুর থেকে নীলফামারী হয়ে পঞ্চগড়ের বাংলাবান্ধা বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত পৌঁছাবে এসব গাড়ি।  
যেভাবে ‘রংপুর-বাংলাবান্ধা এক্সপ্রেস’ মেইল বাস চেনা যাবে-

রংপুর-নীলফামারী-পঞ্চগড় রুটে চলাচলরত এসব গাড়িতে লাল-সবুজের পতাকা থাকবে। পতাকার ওপরে সবুজ এবং নিচে হবে লাল রঙ। রংপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে ৩০-৪০ মিনিট পর পর রংপুর-বাংলাবান্ধা এক্সপ্রেস মেইল বাস ছেড়ে যাবে।
 
এসব বাসের স্টপেজ হবে রংপুর থেকে পাগলাপীর, তারাগঞ্জ হয়ে কিশোরগঞ্জ, টেঙ্গনমারী, নীলফামারী, গাছবাড়ী, নীলসাগর সড়কে, ভবানীগঞ্জ, সোনাহাট, দেবীগঞ্জ, সাখওয়া, বোদা, পঞ্চগড়, তেঁতুলিয়া ও বাংলাবান্ধা। দীর্ঘ ১২৫ কিলোমিটারের এ পথ পাড়ি দিতে সময় লাগবে সাড়ে তিন ঘণ্টা। রংপুর থেকে পঞ্চগড় যেতে ভাড়া ১৭০ টাকা এবং নীলফামারী থেকে পঞ্চগড়ে ৯০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।