জন্মের প্রায় এক যুগ পূর্বে ডিক্রি প্রাপ্তি: জালিয়াতি চক্রের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের

জন্মের প্রায় এক যুগ পূর্বে ডিক্রি প্রাপ্তি: জালিয়াতি চক্রের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের
ছবি: সংগৃহীত

আজমীর হোসেন তালুকদার, ঝালকাঠি: জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে জন্ম গ্রহনের এক যুগ পূর্বে আদালত থেকে ডিক্রিপ্রাপ্তি দেখিয়ে জমি দখল ও রেকর্ডে সহযোগীতার অভিযোগে সাবেক সেনা সদস্য, ইউপি তহশিলদারসহ ৭জনের বিরুদ্ধে ঝালকাঠি আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। নলছিটি উপজেলার কুশংঙ্গল গ্রামের মোঃ হাবিবুর রহমান বাদি হয়ে সি/আর ১৬৪/২২(নল) মামলা দায়ের করেন। আদালতের বিজ্ঞ বিচারক মো.মনিরুজ্জামান তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন প্রদানের জন্য বরিশাল পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেষ্টিকেশন (পিবিআই)কে নির্দেশ দিয়েছেন।

   মামলা বিবরনে উল্লেখ করা হয়েছে, নলছিটি উপজেলার কুশংঙ্গল গ্রামের মৃত আব্দুল গনি হাওলাদারের পুত্র অবসরপ্রাপ্ত সেনাবাহিনীর কার্পেন্টার আ: মজিদ হাওলাদারের ভোটার আইডি কার্ডে জন্ম তারিখ ১৫/০৮/১৯৬৭ ও এনআইডি নম্বর-৪৬৪০২৪৬৭৩৪। 

    অথচ মজিদ হাওলাদার ও তার ভাই আজিজ হাওলাদার বিগত ১৯৫৬ সালে বরিশাল যুগ্ম জেলা জজ ১ম আদালতে এক মামলায় (নং-৭৪/৫৬) জাল-জালিয়াতীর মাধ্যমে কুশংঙ্গল গ্রামের ৫.৭১ একর জমি রায় ডিক্রি হাসিল করেন। 

   এ বিষয়ে তল্লাশি চালিয়ে দেখা যায়, উক্ত মোকদ্দমা নং ৭৪/১৯৫৬ রায় ও ডিক্রির জমি এবং বাদী বরিশাল জেলার বানারীপাড়ায় উপজেলার কতিপয় ব্যক্তির উক্ত মজিদ গংয়ের কোন নাম-ঠিকানা নেই।

   ভূয়া এক ডিক্রি কাগজপত্র দিয়ে কুশঙ্গল ইউনিয়ন ভুমি অফিসের তৎকালীন তহশিলদার মোঃ হারুন মুন্সিকে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে মজিদ হাওলাদার ও তার ৬ভাই-বোনের নামে ৫.৭১ একর জমি এসএ ৭৭৪ নং নতুন খতিয়ান খুলেন। 

    জন্মের প্রায় এক যুগ পূর্বে (১১ বছর) ডিক্রি হাসিলের রহস্য খুজতে গিয়ে বেড়িয়ে আসে বাদী আব্দুল মজিদ গংয়ের জাল-জালিয়াতী ও ভূয়া ডিগ্রী রায়ের নাটক। এর প্রেক্ষিতে গত ১৩ জুন সোমবার ভূক্তভুগী মোঃ হাবিবুর রহমান এসব তথ্য-প্রমান সংগ্রহ করে সাবেক সেনা সদস্য মজিদ হাওলাদার ও তার ভাই আজিজ হাওলাদার, বোন নাজমা বেগম, ছালমা বেগম, মুকুল বেগম, আলেয়া বেগম ও কুশঙ্গল ইউনিয়ন ভুমি অফিসের তৎকালীন তহশিলদার মো.হারুন মুন্সির বিরুদ্ধে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (নল) আদালতে ৪২০/ ৪৬৫/ ৪৬৭/ ৪৬৮/ ৪৭১ ও ১০৯ ধারায় মামলাটি দায়ের করেন। 

   বাদির অভিযোগ, আসামিরা যে ডিক্রির মূলে তার পৈত্রিক সম্পত্তি দাবী করছেন বরিশাল যুগ্ম জেলা জজ প্রথম আদালতের উক্ত ডিক্রি রায়টিতে বাদী বানারিপাড়ার জনৈক আমজেদ আলী, হানিফ বেপারি ও মোহাম্মদ আলী বেপারি এবং বিবাদী বিরাজ মোহন সমদ্দার। আসামিরা জালিয়াতির মাধ্যমে উক্ত রায় ডিক্রিকে পুজি করে জোরপূর্বক জমি ভোগদখলের চেষ্টা করার বিচার চেয়ে বাদি মামলাটি দায়ের করেন।

   এ বিষয়ে মোঃ আব্দুল মজিদ হাওলাদার (০১৭২৪৪৮৩৭৭২) জানান, তার অরিজিনাল জন্ম তারিখ-১৫/০৮/১৯৩৬। তার ভোটার আইডি কার্ডেও এজন্ম তারিখ আছে। সেনাবাহিনীতে চাকুরী নেওয়ার জন্য তিনি বয়স কমিয়ে ১৫/০৮/১৯৬৭ দেখিয়ে ১৯৯২ সনে কার্পেন্টার পদে চাকুরী নেন ও ২০১৮ সনে অবসরে আসেন। জাল রায় ডিক্রির ব্যাপারে তিনি কিছু জানেন না মামলার ব্যাপারেও কিছু শোনেনি।