জবি শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার 

জবি শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার 
ছবিঃ সংগৃহীত

মাহির আমির মিলন।। জবি প্রতিবেদক।। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী অমিতোষ হালদারের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

 (বৃহস্পতিবার)  সকাল সাড়ে দশটায় বাড়ির পাশের একটি গাছ থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। 

গনযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এই শিক্ষার্থীর  গ্রামের বাড়ি গোপালগঞ্জ জেলার সদর থানার পাটিকেলবাড়ি ইউনিয়নে। তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ। তার লাশের সাথে একটি সুইসাইড নোটও পাওয়া গেছে। 

তার আত্মহত্যার বিষয়টি নিশ্চিত করে গোপালগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, এই ছাত্র গত এক মাস আগে ঢাকা থেকে বাড়িতে আসে। বাড়িতে এসে অনেকটা নিশ্চুপ ছিল। বুধবার রাতের বেলায় বাবা-মাকে ঘরের বাইরে থেকে তালাবদ্ধ করে সে গাছের ডালে দড়ি দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।

পুলিশ খবর পেয়ে সকাল সাড়ে আটটার দিকে লাশ উদ্ধার করে গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে ময়না তদন্তের জন্য পাঠায়। পরে লাশ স্বজনদের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। 

এদিকে তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের তার সহপাঠী ও বিভাগের শিক্ষকরা।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী রাফসান জানি খান বলেন, তিনি আমাদের দুই বছরের সিনিয়র ছিলেন। বিভিন্ন সমস্যায় দুই বছর গ্যাপ দিয়েছেন। সিনিয়র হওয়াতে আমরাও তেমন জোর করে সম্পর্ক করতে যেতাম না। উনিও দরকার ছাড়া আমাদের সঙ্গে কথা বলতেন না। ধারণা করা হচ্ছে উনি মানসিকভাবে হতাশা থেকেই এমনটি করেছেন। তিনি অসাধারণ মানুষ ছিলেন।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান ড. শাহ মো. নিসতার জাহান কবির বলেন, অমিতোষ ক্লাসে খুব চুপচাপ থাকতেন। শিক্ষক হিসেবে তার মৃত্যুর সংবাদ পাওয়াটা প্রচন্ড কষ্টদায়ক। তার বন্ধুরা বা প্রতিবেশীরা কেউই কারণ বলতে পারছে না। তার ফেসবুক পোস্ট বা কোনো তথ্য যদি আমার চোখে পরতো তবে বোঝানোর চেষ্টা করতাম। তার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছি।