জামিনে এসে সাংবাদিকসহ জনপ্রতিনিধিকে প্রাণনাশের হুমকি!

জামিনে এসে সাংবাদিকসহ জনপ্রতিনিধিকে প্রাণনাশের হুমকি!
ছবি: সংগৃহীত

মোহাম্মদ হাসানঃ দাগনভূঞা ইকবাল ভূঁইয়া মেমোরিয়াল ডিগ্রী কলেজের সাবেক সভাপতি রাশেদ (ভিপি রাশেদ) এর বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, ইয়াবা ব্যবসায়ী, এনায়েতভূঞা ঈদগাহের গাছ কেটে বিক্রি, মানুষের টাকা আত্নসাৎসহ বিভিন্ন ধরণের অভিযোগ উঠেছে। ৫ নং ইয়াকুবপুর ইউনিয়নে অবৈধ কৃষি জমির মাটি বিক্রির সিন্ডিকেট, এনায়েতভূঞা বিভিন্ন গ্রামাঞ্চলে মাদক, ইয়াবা, গাঁজাসহ নারী সংগঠিত অনেক অভিযোগ উঠে এসেছে। তার সন্ত্রাসী আচরণের ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস পায়না।

উল্লেখ্য, গত ৫ মে রবিবার স্থানীয় এক গরু ব্যাবসায়ীর নিকট ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। দাবিকৃত চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে তাকে মারধরের হুমকি প্রদান করেন ও গালিগালাজ করেন। পরবর্তীতে তিনি দাগনভূঞা থানায় অভিযোগ করলে গত ৮ মে রবিবার সন্ত্রাসী রাশেদকে গ্রেফতার করে কোর্টে প্রেরণ করেন। বিজ্ঞ আদালত জামিন নামমঞ্জুর করে তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন। দীর্ঘ ১২ দিন পর জামিনে এসে প্রকাশ্য লাইভে এসে প্রথম নিউজ প্রকাশ করায় সিনিয়র সাংবাদিক আজাদ মালদারকে বিভিন্ন মিথ্যা বক্তব্য প্রদান, অশোভন আচরণ, জীবন নাশের হুমকিসহ কুটক্তিভাষা ব্যবহার করে, এবং যারা যারা এ নিউজ করেছেন তাদেরকেও একই রকম আচরণ করেন। সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য বলেন, আমি ভিপি রাশেদ কে? আপনারা চিনেন না! আমি উপজেলা চেয়ারম্যান ছাড়া কাউকে জমা খরচ দিয়ে চলিনা। প্রয়োজনে আবার জেলে যাবো, রাজনীতি করলে জেলে যায় তাতে কিছু যায় আসেনা। বড় বড় নেতারাও জেলে যায়।

জামিনে এসে ব্যক্তিগত ফেইজবুক পেজে লাইভে হুমকি ও অশোভন আচরণ ও সাংবাদিকদের হুমকি দানে দাগনভূঞা ও ফেনীর সাংবাদিকগন ক্ষোভ প্রকাশ করেন। সরকার দলের পদ হারানো একজন কর্মীর প্রকাশ্য সাংবাদিক ও জনপ্রতিনিধি আলি মূর্তজাসহ কয়েক ব্যক্তিকে গালমন্দ ও হুমকি প্রদানে রাজনীতির দূর্ণাম হচ্ছে বলে জানান স্থানীয়রা। তার এমন বক্তব্য তীব্র নিন্দা জানান দাগনভূঞা প্রেসক্লাব ও রিপোর্টার্স ইউনিটির সাংবাদিকগন।

এ বিষয়ে সিনিয়র সাংবাদিক আরটিভি ও যায়যায়দিন ফেনী প্রতিনিধি, ফেনী প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি আজাদ মালদার জানান, এনায়েতভূঞা ঈদগাহর মত পবিত্র জায়গায় তার আধিপত্য বিস্তার করে জনগনকে জিম্মি করে অর্থ আদায় করলেও কারোই মাথা ব্যাথা নেই। দুধমুখার এক ব্যাবসায়ীর নিকট চাঁদা আদায়ের মামলা হলে সন্ত্রাসী রাশেদ গ্রেফতার হয়ে জেল থেকে জামিনে বেরিয়ে আসে।