ঝালকাঠিতে মন্দিরে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট: বিচারের দাবীতে ভুক্তভোগীর সংবাদ সম্মেলন

ঝালকাঠিতে মন্দিরে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট: বিচারের দাবীতে ভুক্তভোগীর সংবাদ সম্মেলন
ছবিঃ আজমির তালুকদার
আজমীর হোসেন তালুকদার, ঝালকাঠি: ঝালকাঠির নলছিটিতে প্রাচীন মন্দিরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে মালামাল লুটের প্রতিবাদ ও হামলায় নের্তৃত্ব দেয়া
সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ৩ভাইসহ তাদের দলবলের বিচার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভোগীরা।
২৯ জুন বেলা ১২ টায় ঝালকাঠি টেলিভিশন সাংবাদিক
সমিতিতে উপস্থিত হয়ে এ অভিযোগ করেন রেক্সোনা রানি দাস। রেক্সোনা রানি দাস ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলার শ্রী মনিন্দ্র চন্দ্র রায়ের স্ত্রী এবং মন্দিরের প্রতিষ্ঠাসহ জমিদাতা পরিবারের সদস্য।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, স্থানীয় মৃত বেজেন্দ্র দাসের ছেলে ভূমীলোভী স্বপন দাস, রতন দাস, তপন দাসসহ ৩ভাই কয়েক বছর পূর্বে মন্দির ভাংচুর করে
মধ্যে থাকা কষ্টিপাথরের মূল্যবান মূর্তি লুটে নেয় এবং মন্দিরের নামে দানকৃত প্রায় ৪/৫ একর সম্পত্তি জোরপূর্বক ভোগদখল করে আসছে। গত ১ জুন
বুধবার সকাল ১০ টার দিকে উক্ত ৩ ভাইয়ের নেতৃত্বে স্থানীয় জামিনি দাসের ছেলে বিজয় কৃষ্ণ দাস, শ্যামল দাসের ছেলে সজল দাস, বিমল পোদ্দারের ছেলে
বিনয় পোদ্দারসহ একটি দল অস্ত্র-স্বস্ত্র নিয়ে আমাদের দুইশত বছর আগের পুরনো প্রাচীন মন্দিরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে এবং মন্দিরে থাকা সকল
মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।
বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে তিনি আরো জানান, বছরের পর বছর ধরে স্থানীয় মুসলমি সম্প্রদায়ের লোকজন মন্দিরের সকল কাজে আমাদের সহযোগীতা করে আসছে।
অথচ হিন্দু ধর্মাবলম্বী হয়েও তারা পুজামন্ডপ ও মন্দিরসহ ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের সম্পত্তি জবরদখলে করে ব্যক্তিগত স্বার্থে ব্যবহার করতে পিছপা হয়নি। এমন কি দখলদার ঐ ৩ ভাই ও তাদের সাঙ্গপাঙ্গরা তাদের লুটপাট ও দখলের ঘটনা আড়াঁল করতে স্থানীয় মুসলিম অধিবাসীদের দায় চাপাতে নানা অপপ্রচার চালায়।
   গত ১ জুন মন্দিরে হামলা-ভাংচুর ও মালামাল লুটের এ ঘটনায় গত ৫ জুন ঝালকাঠি বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালতে হামলাকারিদের
বিরুদ্ধে মামলা (সি.আর মোং নং-১৫৩/২০২২) দায়ের করেছেন বলে তিনি সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করেন। এ ঘটনার তিনি সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করে হামলাকারীদের
বিচার দাবি করেন।