ঝালকাঠি জেলায় উচ্চ পানির ফলে ক্ষয়ক্ষতির শিকার,পানি বন্দী অধিকাংশ গ্রাম।

ঝালকাঠি জেলায় উচ্চ পানির ফলে ক্ষয়ক্ষতির শিকার,পানি বন্দী অধিকাংশ গ্রাম।
ছবিঃ সংগৃহীত

মানিক হাওলাদার।। স্টাফ রিপোর্টার।। ২৬ মে, বুধবার।। বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’ এর প্রভাবে ঝালকাঠিতে সুগন্ধা ও বিষখালী নদীর পানি স্বাভাবিকের চেয়ে বৃদ্ধি পেয়েছে।  ঝালকাঠি জেলার চারটি উপজেলাসহ সুগন্ধা নদীর তীরবর্তী অঞ্চলে সকাল থেকে  পানি বৃদ্ধির হওয়া শুরু করে।  দুইদিন ধরে হালকা ঝড়ো হাওয়া  বয়ে চলছে। গতকাল রাত্র থেকে  ঝড় বৃষ্টি শুরু হয় এবং পানি বৃদ্ধি পায়।

জেলার নলছিটি উপজেলা ঝড়ো হাওয়া পানি বৃদ্ধির কারণে পানিবন্দি হয়ে রয়েছে অনেক এলাকা। ৬/৭ ফুট পানি বৃদ্ধি পায়। গতকাল রাত্র থেকে বিদ্যুৎ চলে যাওয়াই বিপকে পড়েছে খামার গুলি এবং মাছের ঘের তলিয়ে ক্ষয়ক্ষতির শিকার হচ্ছে খামারিরা,চাষাবাদ জমি তলিয়ে জাওয়ার কারনে অনেক ফসলের ক্ষতি হয়েছে ও গবাদিপশু ক্ষতি হয়। এবং অনেক জায়গাতে গাছপালা ভেঙে পড়েছে। স্কুল-কলেজ মাদ্রাসা, মসজিদ, রাস্তাঘাট তলিয়ে পানিবন্দি হয়ে রয়েছে প্রত্যন্ত অঞ্চলের কয়েক হাজার মানুষ। উচ্চ পানির জোয়ারের কারণে মেইন সড়কের কিছু জায়গা ছুটে যায়। গ্রামের মাটির রাস্তা গুলো অধিকাংশই পানির জোয়ারে ভেসে নিয়ে গেছে। অনেক গ্রামেই ক্ষয়ক্ষতির শিকার হয়েছে বলে জানা যায়।

নলছিটি উপজেলার নির্বাহী অফিসার রুম্পা সিকদার সকাল থেকে নলছিটি বিভিন্ন এলাকায় পরিদর্শন করেন। এবং ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের সম্বন্ধে গ্রামবাসীদেরকে দিক নির্দেশনামূলক কথা জানান বিভিন্ন জায়গায় যেয়ে মাইকিং এর মাধ্যমে নির্দেশনা দেন। উপকূলীয় স্কুলগুলো খুলে দেওয়ার কথা বলেন, গ্রামের মানুষদের আশ্রয় স্থল গুলিতে যেতে বলা হয়।