ঝালকাঠি থানা হেফাজতে যুবকের আত্মহত্যা

ঝালকাঠি থানা হেফাজতে যুবকের আত্মহত্যা
ছবি: আজমীর হোসেন তালুকদার

আজমীর হোসেন তালুকদার, ঝালকাঠি।। ঝালকাঠি সদর থানা হেফাজতে হেল্পডেস্ক কক্ষে আটককৃত মাদকাসক্ত রাজেশ রায় (২২) নামের এক যুবক আত্মহত্যা করেছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যা সারে ৬টায় পড়নের লুঙ্গি সিলিং ফ্যানের সাথে বেঁধে গলায় ফাঁস দিয়েছে বলে থানা পুলিশ ও নিহতের পিতা অমল রায় নিশ্চিত করেছে।

   'বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে তার ছেলে রাজেশ নামের ঐ যুবককে বিকেল সারে ৪টায় থানায় আনা হয়েছিলো বলে ঝালকাঠির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মইনুল হক জানান। ঐ কক্ষে সে লুঙ্গি দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।'

   নিহতের বাবা অমল রায় বলেন, 'আমার ছেলে রাজেশ রায় অনেক দিন ধরে নেশা করে আসছিল। তাকে সুস্থ করার জন্য আমি মাদক নিরাময় কেন্দ্রে ভর্তি করেও চিকিৎসা করিয়েছি। তারপরেও তাকে মাদকের পথ থেকে ফেরানো যায়নি। আজ মঙ্গলবার বিকেলে সে টাকার জন্য ঝগড়ার এক পর্যায়ে আমাকে মারধর শুরু করে। তখন আমি নিজেকে রক্ষায় ৯৯৯ নম্বরে কল দিলে কিছু সময় পর পুলিশ এসে রাজেশ'কে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। সেখানে রাখার পর সকলের অজ্ঞাতে সে আত্মহত্যা করেছে।

    অমল রায়ের সাথে থাকা প্রতিবেশি ইকবাল হোসেন জানায়, 'রাজেশকে থানায় এনে একটা কক্ষে রাখা হয়েছিলো। এসময় রাজেশের বাবা অমল রায় ওসির রুমে অভিযোগপত্র লিখছিলো। আমি তাকে দেয়ার জন্য রুটি ও কলা কিনতে থানার বাইরে যাই। এই সময়ের মধ্যে রাজেশ গলায় ফঁসি দিয়া আত্মহত্যা করে। '

    এ ব্যাপারে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. খলিলুর রহমান বলেন, 'পরিবারের অভিযোগ না থাকায় এবিষয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা রুজু করার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। নিহত রাজেশের নামে সদর থানায় পূর্বেও একটি মামলা রয়েছে এবং সেই মামলায় রাজেশের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা ছিলো।'