ঝালকাঠি বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রে বিদ্যুৎপৃষ্ঠ হয়ে এক শ্রমিক জীবন-মৃত্যুর সন্ধি:ক্ষনে

ঝালকাঠি বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রে বিদ্যুৎপৃষ্ঠ হয়ে এক শ্রমিক জীবন-মৃত্যুর সন্ধি:ক্ষনে
ছবি: সংগৃহীত

আজমীর হোসেন তালুকদার, ঝালকাঠি।।ঝালকাঠিতে বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ না করেই বিদ্যুৎ লাইনের সংস্কারের সময় বিদ্যুৎপৃষ্ঠ হয়ে এক শ্রমিক (২৫) জীবন-মৃত্যুর সন্ধি:ক্ষনে পতিত হয়েছে। মো.বদরুজ্জামান নামে ঐ শ্রমিক এলএনটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের হয়ে কাজ করছিলো।

    রবিবার দুপুর ২টার দিকে ঝালকাঠি পৌরসভার সামনে ওজোপাডিকোর নতুন বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রে এ দূঘটনা ঘটে। ঘটনার সাথে সাথে ঝালকাঠি ফায়ারষ্টেশন কে খবর দিলেও প্রায় ৩০মি: পরে ঘটনাস্থলে আসেন। তারা আসার আগেই আহত বদরুজ্জামানকে ম্যানেজারের প্রাইভেটকারে বরিশাল শেরে-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। বদরুজ্জামানের অবস্থা আশংকাজনক বলে প্রাথমিক ভাবে জানাগেছে।

    শ্রমিক নামপ্রকাশ না করার শর্তে জানায়, বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র নির্মাণ কাজের নিয়োজিত ঠিকাদার শাটডাউন ছাড়াই (বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ না করে) ওই লাইন সংস্কারের কাজ শুরু করতে তাগিদ দেন। ফলে সে একাই কাজ শুরু করতে গিয়ে তাৎক্ষনিক বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে পেট থেকে পা পর্যন্ত আগুনে পুড়ে গুরুতর আহত হয়ে তাঁরের সাথে ঝুলে থাকে। কয়েকজন দুপুরের খাবার খেতে আমরা এক সাথে গেলেও ওর খাওয়া শেষে আমাদের আগে চলে আসে। সেক্ষেত্রে কি ভাবে দূর্ঘটনা হলো আর সে কেনো একা ঝুকিপূর্ন স্থানে উঠলো সেটা ঠিকাদার বলতে পারবে।

    এদিকে বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র নির্মাণ কাজের নিয়োজিত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স এলএনটি কোম্পানির জেনারেল ম্যানেজার মোমেন চট্রপাধ্যায়। তিনিই প্রতিষ্ঠানটির পক্ষে কাজের তদারকি করছেন। ওনার অবহেলাতেই এদূর্ঘটনা ঘটেছে বলে জানান শ্রমিক ও স্থানীয়রা। 

    তবে ঘটনার পর থেকে তার সাথে বারবার যোগাযোগ করলেও তিনি সাংবাদিকদের তথ্য দেয়া নিয়ে তালবাহানা করতে থাকেন। এমনকি সাংবাদিক পরিচয় সেলফোনে কল দিলেই অনেক সাংবাদিকদের সাথে খেপে যান। আবার স্বশরীরে যে সকল সাংবাদিক তথ্য সংগ্রহে গিয়েছেন তাদের দুই তিন ঘন্টা পরে আসতে বলে এই মোমেন চট্টোপাদ্যায় আর কথা বলেনি।

    উল্লেখ্য, ঝালকাঠিতে ১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে দ্বিতীয় বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র নির্মাণের কাজ ২০১৮ সালের ২২ নভেম্বর শুরু করা হয়। ৩৩/১১ কেভি বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র নির্মাণ কাজ বিদ্যুৎ বিভাগের সরবরাহ কেন্দ্রের নিজস্ব জায়গায় ভারতীয় ঠিকাদারি কোম্পানি এলএনটি কোম্পানি লিমিটেড উপকেন্দ্রটি নির্মাণ করছে।

    সংশ্নিষ্ট সূত্রে জানা যায়, উপকেন্দ্রটির নির্মাণকাজে ধীরগতির কারণে নির্ধারিত সময়ে কাজ শেষ করা সম্ভব হয়নি। ২০১৮ সালের ২২ নভেম্বর প্রকল্পটির কাজ শুরু হলেও এ পর্যন্ত তিনবার প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানোর পর আগামিকাল ২আগস্ট কাজ হস্তান্তর করার কথাছিলো বলে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জানিয়েছেন।