টেকনাফ বনভূমি থেকে অবৈধ দখল উচ্ছেদ: ভূমিদস্যু জবর দখলদারদের আতংক বিট কর্মকর্তা ফেরদৌস

টেকনাফ বনভূমি থেকে অবৈধ দখল উচ্ছেদ: ভূমিদস্যু জবর দখলদারদের আতংক বিট কর্মকর্তা ফেরদৌস
ছবিঃ সংগৃহীত

কক্সবাজার প্রতিনিধি।। শুক্রবার, ১৬জুলাই।।কক্সবাজার দক্ষিণ বনবিভাগের হোয়াইক্যং রেঞ্জের আওতাধীন শামলাপুর পাহাড় গুলো ভূমিদস্যু এবং পাহাড় দখলদারদরা পৈত্রিক সম্পত্তির মতো ভোগদখল করে আসছে যুগ যুগ ধরে। বিভিন্ন গাছে ভরা পাহাড় গুলো ধু-ধু মরুভূমিতে পরিনত হয়েছিলো পাহাড় ও গাছ খেকোদের থাবায়। বনবিটের হাজার হাজার একর বনভূমি পাহাড় খেকোদের দখলে থাকলেও বর্তমান শামলাপুর বিটে কর্মকর্তা কেবিএম ফেরদৌস আসার পর থেকে পাহাড় কাটা, জরবদখল, গাছ খেকোদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে বলে একটি সুত্রে জানা গেছে। পাহাড় কাটা, দখলদারদের বিরুদ্ধে মামলা এবং দখল উচ্ছেদ অভিযান রীতিমতো চলছে শামলাপুর পাহাড় দখলদারদের বিরুদ্ধে।

বিগত ১০ জুলাই শামলাপুর নয়া পাড়ায় পাহাড়ে অভিযান চালিয়ে পাহাড় থেকে অবৈধ প্রভাবশালী দখলদারদের বিরুদ্ধে উচ্ছেদ অভিযান চালিয়ে আনুমানিক ২ একর বনভূমি দখল মুক্ত করেছে বিট অফিসার ফেরদৌস ।

সুত্রে জানা গেছে,বিগত শনিবার (১০ জুলাই ) ভূমিদস্যু অবৈধভাবে পাহাড় দখলদার মৃত মকবুল সোবাহানের ছেলে নবী হোসেন প্রকাশ কালা হাজি(৫৫), তার ছেলে দেলোয়ার(৩০), ইমরান (২৭) অজ্ঞাত ৫-৬ জনসহ বনবিভাগের পাহাড় অবৈধভাবে জবরদখল করে সেখানে আম,সুপারী গাছের চারা রোপন করেছিলো।এমন সংবাদ পেয়ে স্হানীয় বনবিট কর্মকর্তা কেবিএম ফেরদৌস ও বিট অফিসের স্টাফ এবং সিপিজির সদস্যদের সাথে নিয়ে পাহাড় গেলে দখলদাররা দেখে পালিয়ে যায়।

এবং সেখানে ছোট ছোট সুপারী, আম গাছের চারা কেটে অবৈধভাবে পাহাড় দখলদারদের দখল মুক্ত করা হয়। এবিষয়ে শামলাপুর বিট কর্মকর্তা কেবিএম ফেরদৌস জানান, অবৈধভাবে পাহাড় দখল করে সেখানে গাছের চারা রোপন করছে জানতে পায়। এবং সাথে সাথে স্টাফ ও সিপিজির সদস্যদের নিয়ে গেলেই পাহাড় দখলদাররা পালিয়ে যায়। কিছু সুপারি, আম গাছের চারা রোপন করা দেখে সেগুলো কেটে বনভূমি দখলমুক্ত করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

অনুসন্ধানে জানা গেছে,উচ্ছেদ অভিযানের পর ভূমিদস্যু পাহাড় জবরদখলদারকারীরা বিট কর্মকর্তা,স্টাফ ও সিপিজির সদস্যদের বিভিন্ন ভাবে হুমকি-ধামকি দিচ্ছে। শামলাপুরে আনুমানিক ৫০ প্রভাবশালী পাহাড় জবরদখলদার, পাহাড় কর্তনকারী যুগ যুগ ধরে পাহাড়ের প্রতি অবিচার করে আসলে ও বর্তমান বিট কর্মকর্তা কেবিএম ফেরদৌস যোগদানের পর থেকে ভূমিদস্যু, জবরদখলদার, পাহাড় খেকোরা আতংকে রয়েছে। নিজেদের পৈত্রিক সম্পত্তির মতো যারা পাহাড় বিক্রি, জবরদখল, পাহাড় কর্তন করছে তাদের বিরুদ্ধে রীতিমতো মামলা দিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন শামলাপুর বিট কর্মকর্তা বেবিএম ফেরদৌস জানান।

ভূমিদস্যুদের বিরুদ্ধে উচ্ছেদ অভিযান এবং মামলা হলে তারা বিভিন্নভাবে হুমকি দেয়। এবিষয়ে তিনি আরো জানান, যতই হুমকি আসুক পাহাড় গুলোকে জবরদখলদারদের থেকে মুক্ত করবো। এবং কোন পাহাড় দখলদারদের ছাড় দেওয়া হবেনা বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এবিষয়ে হোয়াইক্যং রেঞ্জ কর্মকর্তা আব্দুল মতিন জানান,অপরাধ ও করবে আবার হুমকি ও দিবে এটা কেমন কথা।পাহাড় দখলদার যতই প্রভাবশালী হোক না কেন ছাড় দেওয়া হবেনা।পাহাড় দখলদারদের বিরুদ্ধে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করে ভূমি দখলমুক্ত করা হয়েছে।এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।