ঠাকুরগাঁওয়ে পাকা রাস্তার দাবিতে মানববন্ধন

ঠাকুরগাঁওয়ে পাকা রাস্তার দাবিতে মানববন্ধন
ছবি: সংগৃহীত

জীবন হক, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি।।  ঠাকুরগাঁও সদরে দেড় কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা পাকা করার দাবিতে মানববন্ধন করা হয়েছে। 

শনিবার বেলা ১২ টার দিকে উপজেলার আকচা ইউনিয়নের মুন্সি পাড়া গ্রামে সামাজিক সংগঠন আকচা তরুণ শক্তির ব্যানারে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে গ্রামের অন্তত দুই শতাধিক মানুষ অংশগ্রহণ করে। 

মানববন্ধনে আকচা তরুণ শক্তির সভাপতি সুলতান মাহমুদ সৈকত  বলেন, দেশে উন্নয়ন হয়েছে। জেলার সীমান্তবর্তীর্তী উপজেলা গুলোর রাস্তা পাকা হয়েছে। অথচ আমরা শহর ঘেষা একটি এলাকায় থেকেও এতদিনে পাকা হয়নি। আমরা রাস্তাটি পাকা চাই। 

সংগঠনের সহসভাপতি আশরাফুজ্জামান বলেন, ৩৫ বছর ধরে শুনে আসছি রাস্তাটি পাকা হবে। কিন্তু বাস্তবতার সাথে আমার ৩৫ বছরের শোনা কথার কোন মিল আমি পাইনি। এই এলাকায় প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে বর্ষার সময় তারা সবচেয়ে বেশি দূর্ভোগে পড়ে। অনেক সময় পিচ্ছিল রাস্তায় দুর্ঘটনা ঘটে। এছাড়াও কোন অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটলেও ফায়ারসার্ভিস আসতে ব্যহত হবে এলাকায়।  রাস্তাটি পাকা করা এখন সময়ের দাবি। 

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বলেন, স্বাধীনতার এত বছরেও গ্রামের ৫ হাজার মানুষের দূর্ভোগ দমাতে দেড় কিলোমিটার রাস্তা পাকা হয়নি। এটা স্থানীয় জন প্রতিনিধিদের বৈষম্যের কারনে। এ পাকাটি তারা ছিট মহল করে রেখেছ। শুধু মাত্র ভোট এলে তারা প্রতিশ্রুতি দিয়ে যায়। আমরা আর প্রতিশ্রুতি শুনতে চাইনা। আমরা রাস্তা পাকা চাই। 

স্থানীয় নারী মনোয়ারা বেগম বলেন,  আমি একটি চায়ের দোকান করি এলাকার ভেতর। রাস্তাটি পাকা হলে এখানে আর্থসামাজিক উন্নয়ন হবে৷ রাস্তা পাকা না হওয়ার কারনে এলাকাতে বহিরাগত কাস্টমার আসেনা। অথচ রুহিয়, আটোয়ারি যে একমাত্র বাইপাসের প্রধান বাঁধা দের কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা। আমরা রাস্তাটি পাকা চাই। 

স্থানীয় যুবক মোবাস্সের ইমরান তরুণ শক্তির সহ সাংগঠনিক সদস্য, মানববন্ধনে দাড়ি তিনি সরকার প্রধানের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। বলেন, এত উন্নয়নের দেশে দেড় কিলোমিটার সড়ক পাকা হয়নি স্বাধীনতার ৫০ বছরেও। স্থানীয় সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে দেড় কিলো রাস্তা পাকা করণের দাবি করেন তিনি। 

দুর্ভোগ তুলে ধরে আকচা তরুণ শক্তির ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক মুস্তাহিদ হোসেন বলেন, ১০ টাকার ঘরভাড়া ৫০ টাকা দিলেও এখানে রিকসাওয়ালা আসতে চায়না। গোটা রাস্তা খাল ছন্দকে ভরা। বর্ষার সময় প্রায় দূর্ঘটনা ঘটছে। গর্ভবতী ও অসুস্থ মানুষদের কথা চিন্তা করেও দ্রুত রাস্তাটি পাকা করার দাবি জানাই।  

এছাড়াও মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, ছাত্র, শিক্ষক, রাজনীতিক সহ গ্রামের বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ। 

মানববন্ধন শেষে আয়োজকরা জানান আগামিকাল রবিবার সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসর সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তরে স্মারকলিপি দিবেন তারা।