ডেকেও মেলেনি সাড়া, মুখ দিয়ে লালা ঝরছিল শামীমের

ডেকেও মেলেনি সাড়া, মুখ দিয়ে লালা ঝরছিল শামীমের

তৌহিদুল ইসলাম, নিউজ করেসপনডেন্ট।। রংপুর নগরীর সেন্ট্রাল রোডের একটি ব্যাংকের ভেতর থেকে শামীম মিয়া নামে এক নিরাপত্তা প্রহরীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রোববার সকালে অগ্রণী ব্যাংকের ভেতর থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। শামীম রংপুর মিঠাপুকুর উপজেলার রানীপুকুর নাসিরাবাদ গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে। 

ওই ব্যাংকের ব্যবস্থাপক আরিফুল ইসলাম জানান, সকালে শাখার লোকজন ব্যাংকে এসে ডাকাডাকির পরও কোনো সাড়া না পাওয়ায় পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেওয়া হয়। পরে তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে দেখতে পান শামীম শুয়ে আছেন। কাছে গিয়ে দেখা যায়, তার মুখ দিয়ে লালা ঝরছে এবং তিনি মারা গেছেন। বর্তমানে ব্যাংকে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা অবস্থান করছেন। তবে ব্যাংকের টাকাসহ অন্য কিছু লোপাট হয়েছে কিনা তা জানা যায়নি।

তিনি আরো বলেন, এ ঘটনায় সকাল থেকে ব্যাংকের গ্রাহক সেবাও বন্ধ রাখা হয়েছে। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছে গ্রাহকরা। এছাড়া শামীম ১৭ মাস থেকে সিকিউরিটি গার্ড হিসেবে এখানে চাকরি করছেন। ১০ দিন আগে বিয়ে করেছেন তিনি। 

মৃত শামীমের ভাই শরিফুল বলেন, শামীম প্রতিদিন সন্ধ্যায় বাড়ি যেত এবং সকালে ব্যাংকে আসতো। কিন্তু গতকাল সে বাড়িতে যায়নি।

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতোয়ালি থানার ওসি (তদন্ত) হোসেন আলী জানান, মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।