ডাক বাক্সের আদলে নির্মিত নান্দনিক ডাক ভবনের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

ডাক বাক্সের আদলে নির্মিত নান্দনিক ডাক ভবনের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
ছবিঃ সংগৃহীত

মোহাম্মদ হাসান।। স্টাফ রিপোর্টার।। ডাকবাক্সের আদলে নির্মিত নান্দনিক ডাক অধিদপ্তরের সদর দপ্তর ‘ডাক ভবন’ এর শুভ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

আজ ২৭মে  বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সংবলিত নান্দনিক এই ভবনটি উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই সঙ্গে দিনটি স্মরণীয় করে রাখতে নতুন ডাকটিকিটও উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী। গণভবন থেকে অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন তিনি।

দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ১৯৭১ সালের ২০ ডিসেম্বর গুলিস্তানের জিপিও ভবনের কয়েকটি কক্ষ নিয়ে যাত্রা শুরু ডাক অধিদপ্তর। এরপর জিপিও ভবনের তৃতীয় তলা থেকে চলে প্রশাসনিক কার্যক্রম। দীর্ঘ প্রায় ৫০ বছর পর নতুন প্রধান কার্যালয় পেয়েছে ডাক বিভাগ।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে নতুন এ ভবনটির প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আধুনিক বিল্ডিং হয়েছে। খুব সুন্দর ভবন।’

তিনি বলেন, ‘উন্নত সুবিধা রেখে ভবনটি হয়েছে, যাতে গ্রাহক সেবা বাড়ে। ওই এলাকার অন্যান্য ভবন থেকে এটা একদম আলাদা। লেটার বক্স তো মানুষ ভুলেই যাচ্ছে। এটা দেখলে মনে হবে যে না, একটা বক্স আছে। এটা থাকবে।’

অনু্ষ্ঠানে করোনার মধ্যে অনলাইন কেনাকাটার ক্ষেত্রে ডাক বিভাগকে এগিয়ে আসার নির্দেশ দেন সরকারপ্রধান। পচনশীল পণ্য পরিবহনে কুলিং ব্যবস্থাসহ ওয়্যার হাউজ নির্মাণের তাগিদও দেন তিনি।

সরকারপ্রধান বলেন, ‘করোনার জন্য অনলাইন কেনাবেচা বেড়েছে। পচনশীল জিনিসও যেন ডাকের মাধ্যমে পাঠানো যায় সে ব্যবস্থা করতে হবে।

‘রান্না করা খাবারও যেন যেকোনো স্থানে পাঠানো যায় এ জন্য কুলিং সিস্টেম দরকার। এভাবে সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে হবে। অনলাইনে ক্রয়-বিক্রয় বাড়ছে। ডাক বিভাগ পিছিয়ে থাকলে হবে না। এটা ডাক বিভাগের জন্য একটা বড় ব্যবসা হতে পারে।’

ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার ডাক ভবনে উপস্থিত থেকে অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন। ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মো. আফজাল হোসেন এবং ডাক অধিদফতরের মহাপরিচালক মো. সিরাজ উদ্দিন প্রমুখ স্বাস্থ্যবিধি মেনে ডাক ভবনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগদান করেন।