তেজগাঁওয়ে স্কুল ছাত্র নিহত ঘটনায় ঘাতক ড্রাইভার গ্রেফতার

তেজগাঁওয়ে স্কুল ছাত্র নিহত ঘটনায় ঘাতক ড্রাইভার গ্রেফতার
ছবি: সংগৃহীত

কোচিং সেন্টারে যাওয়ার জন্য রোববার (১১ সেপ্টেম্বর) সকালে বাসা থেকে বের হয়েছিল সরকারি বিজ্ঞান হাই স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্র মো. আলী হোসেন (১৭)। সকাল সোয়া ৭টার দিকে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল এলাকায় রাস্তা পার হওয়ার সময় তাকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায় একটি মাইক্রোবাস। 

পুলিশ বলছে, দুর্ঘটনা হয়েছে বুঝতে পেরে পুলিশের সিগন্যাল অমান্য করে দ্রুত গতিতে পালিয়ে যান মাইক্রোবাসের চালক জিয়াউল হক। রুট পরিবর্তন করে মাইক্রোবাস নিয়ে তিনি আশুলিয়ায় চলে যান। সেখানেও তিনি নিজের অবস্থান পরিবর্তন করতে থাকেন। এক পর্যায়ে মোবাইল ফোন বন্ধ করে রাখেন তিনি।

সোমবার (১২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে তেজগাঁওয়ের নিজ কার্যালয়ে সংবাদিকদের এসব তথ্য জানান উপ-কমিশনার (ডিসি) আজিমুল হক।

তিনি জানান, দুর্ঘটনার পর ৩৭টি সিসি টিভি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করে পুলিশ। সেগুলো পর্যালোচনার পর মাইক্রোবাসটি শনাক্ত করা হয়। এরপর চালকের অবস্থান শনাক্ত করে সোমবার (১২ সেপ্টেম্বর) সকালে আশুলিয়ার বিশ মাইল এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। একই সঙ্গে মাইক্রোবাসটিও জব্দ করা হয়। 

নিজ কার্যালয়ে সংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন ডিসি আজিমুল হক

ডিসি আজিমুল হক বলেন, গতকাল সকালে দুর্ঘটনার পর ওই এলাকায় দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা আহত আলী হোসেনকে প্রথমে শমরিতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় সেখানকার চিকিৎসক ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেন। ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এ শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়।