দপ্তরির বিরুদ্ধে ছাত্রী ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ, বিচারের দাবীতে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

দপ্তরির বিরুদ্ধে ছাত্রী ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ, বিচারের দাবীতে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ
ছবি: সংগৃহীত

আজমীর হোসেন তালুকদার, ঝালকাঠি: ঝালকাঠির নলছিটিতে পঞ্চম শ্রেণির দুই ছাত্রীকে প্রাইভেট পড়ানোর সময় বিদ্যালয়ের দপ্তরি কাম নৈশপ্রহরীর খোকন সিকদার একছাত্রীকে পাশের রুমে নিয়ে ধর্ষণ চেষ্টা চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আমিরাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গির হোসেন সিকদারের ছোটভাই খোকন আজ শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সাপ্তাহিক বন্ধের দিন সকাল সাড়ে ৬টায় এ ঘটনা ঘটায় বলে অভিযোগে জানাগেছে। এসময় মেয়েদের ডাক-চিৎকারে বিদ্যালয়ের মাঠে ফুটবল খেলায়রত তরুন-যুবক ও স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে দপ্তরি খোকন সিকদারকে অপ্রস্তুত অবস্থায় আটক করে।

     খবর পেয়ে তার বড়ভাই প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গির সিকদার বিদ্যালয়ে এসে যৌনহয়রানির শিকার ছাত্রীদের মুখ থেকে ঘটনার বর্ননা শুনে বিচারের আশ্বাস দিয়ে কৌশলে তাকে ছাড়িয়ে নেয়। এ ঘটনায় উত্তেজিত এলাকাবাসী প্রধান শিক্ষখ ও ও তার ভাই দপ্তরির বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করে ও বিদ্যালয়ের সম্মুখে বরিশাল-ঝালকাঠি আঞ্চলিক মহাসড়ক একঘণ্টা অবরোধ করে রাখে। 

    আক্রান্ত মেয়েটি ও প্রত্যক্ষদর্শী ফুটবল খেলতে আসা নাইম, মিঠু, সাদ্দাম, রুবেল জানায়, দপ্তরি কাম নৈশপ্রহরী খোকন সিকদার শুক্রবার খুব সকালে প্রাইভেট পড়ানোর নামে পঞ্চম শ্রেণির দুই ছাত্রীকে ডেকে বিদ্যালয় ভবনের দোতালার আনে। এরপর চিহ্নিত লম্প্যট খোকন দোতালার একটি কক্ষে দুই ছাত্রীকে পড়ানোর জন্য এনে একজনকে পাশের রুমে নিয়ে দরজা আটকে ধর্ষণচেষ্টা চালায়। এলাকায় বহু লম্প্যটের দায়ে অভিযুক্ত দপ্তরি খোকন এতো ভোরে দুই ছাত্রীকে নিয়ে দোতলায় ওঠার বিষয়টি চোখে পড়লে স্কুল মাঠেই ফুটবল খেলা যুবক সাদ্দামের সন্দেহ হয়। 

    তারা কৌশলে স্কুলভবনের দোতলায় গেলে এক ছাত্রীকে রুমে বসা ও অপর ছাত্রীসহ খোকন অপর একটি রুমের ভিতর থেকে দরজা আটকে অবস্থানরত দেখে ডাকচিৎকার দিলে আশেপাশের লোকজন ছুটে আসে। এসময় এলাকাবাসী ছুটে এসে দপ্তরি খোকনকে বিদ্যালয়ের কক্ষের মধ্যেই দিগম্বর অবস্থায় আটক করে তার বড়ভাই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গির সিকদারকে খবর দেয়। সে এসে হয়রানির শিকার কিশোরীদের মুখ থেকে ঘটনার বর্ননা শুনে ঘটনার কঠোর বিচারের আম্বাস দিয়ে কৌশলে লোকজনের হাত থেকে ছোটভাই দপ্তরি খোকনকে ছাড়িয়ে নিয়ে যায়।
 
   এ ঘটনায় যৌনহয়রানিকারী দপ্তরি খোকন ও দার সহযোগীতায় বড়ভাই জাহাঙ্গিরের বিচারের দাবিতে মেয়ে দুটির পরিবার ও স্থানীয় লোকজন বরিশাল-ঝালকাঠি আঞ্চলিক মহাসড়ক একঘণ্টা অবরোধ করে। তাঁরা অবিলম্বে তাদের গ্রেপ্তার পূর্বক কঠোর বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বিচারের আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেয় এলাকাবাসী। 

    এ বিষয়ে আমিরাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গির সিকদার জানায়, আমি ভিকটিমের মুখ থেকে ঘটনার বর্ননা শুনেছি অপরাধী আমার ছোটভাই হোক আর যেই হোক আমার কাছ থেকে এক চুলও ছাড় পাবেনা। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি ছোটভাই দপ্তরি কাম নৈশপ্রহরীর খোকন সিকদারকে পালিয়ে যেতে সহযোগীতার কথা অস্বীকার করেন।

    এ ব্যাপারে নলছিটি থানার উপপরিদর্শক শহিদুল আলম জানান, এ ঘটনায় একটি মেয়ের পরিবার থানায় অভিযোগ দিয়েছে। অভিযুক্ত দপ্তরি পলাতক, তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।