দেবীগঞ্জ উপজেলা রিপোর্টার্স ক্লাবে শোক দিবস পালিত

দেবীগঞ্জ উপজেলা রিপোর্টার্স ক্লাবে শোক দিবস পালিত
ছবি: সংগৃহীত

লিটন প্রধান।। নিজস্ব প্রতিবেদক।।স্বাধীনতার স্থপতি জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ ১৫ আগস্টে শাহাদত বরণকারী সকল শহিদদের রুহের মাগফিরাত কামনায় পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলা রিপোর্টার্স ক্লাব যথাযথ মর্যাদায় আলোচনা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে।

উল্লেখ্য যে, ১৫ আগস্ট ১৯৭৫ সালে, স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরের নিজ বাসায় সেনাবাহিনীর কতিপয় বিপথগামী সেনাসদস্যের হাতে সপরিবারে শাহাদত বরণ করেন। সেদিন তিনি ছাড়াও নিহত হন তার স্ত্রী বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব। এছাড়াও তাদের পরিবারের সদস্য ও আত্মীয়স্বজনসহ নিহত হন আরো ১৬ জন।

১৫ আগস্ট নিহত হন মুজিব পরিবারের সদস্যবৃন্দ: ছেলে শেখ কামাল, শেখ জামাল ও শিশু পুত্র শেখ রাসেল; পুত্রবধু সুলতানা কামাল ও রোজী কামাল; ভাই শেখ আবু নাসের, ভগ্নিপতি আব্দুর রব সেরনিয়াবাত, ভাগনে শেখ ফজলুল হক মণি ও তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী বেগম আরজু মণি। বঙ্গবন্ধুর জীবন বাঁচাতে ছুটে আসেন কর্নেল জামিলউদ্দীন, তিনিও তখন নিহত হন। দেশের বাইরে থাকায় বেঁচে যান শেখ হাসিনা ও তার ছোটবোন শেখ রেহানা।

প্রতি বছর ১৫ আগস্ট জাতি গভীর শোক ও শ্রদ্ধায় স্মরণ করে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সকল সদস্যদের, পালিত হয় জাতীয় শোক দিবস।
অদ্য ১৯ আগস্ট (শুক্রবার) পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার জেলা পরিষদ ডাকবাংলোতে উপজেলা রিপোর্টার্স ক্লাবের আয়োজনে আলোচনা দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
আলোচনা দোয়া মাহফিলে দেবীগঞ্জ উপজেলা রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি মোঃ আব্দুল কাইউমের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মাঝে ছিলেন দেবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার গোলাম ফেরদৌস, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল মালেক চিশতী, সহকারী পুলিশ সুপার রুনা লায়লা, দেবীগঞ্জ পৌর মেয়র মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক আবু, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রিতু আক্তার ও দেবীগঞ্জ উপজেলা রিপোর্টার্স ক্লাবের সকল সদস্যবৃন্দ সহ প্রমুখ। 
আলোচনায় জাতীর জনকের বর্ণাঢ্য আত্মজীবনী তুলে ধরেন এবং জাতীর জনককে অনুকরণ অনুস্মরণ করা উচিত বলে উল্লেখ করেন।
দোয়া মাহফিলে দেবীগঞ্জ উপজেলা মডেল মসজিদের ইমাম দোয়া অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন।
এ সময় তিনি বঙ্গবন্ধু সহ ৭৫ এ সকল শহিদদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে মোনাজাত করেন।