ধর্ষণ মামলার ভিকটিমের বিরুদ্ধে বিবাদির পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা

ধর্ষণ মামলার ভিকটিমের বিরুদ্ধে বিবাদির পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা
ডানে মামলার বাদী, বামে ভিকটিম নারীর সংবাদ সম্মেলন (ফাইল ছবি)

ঝালকাঠি প্রতিনিধি।। ঝালকাঠি জেলার নলছিটি থানার ধর্ষন মামলার বাদী তরুনীর বিরুদ্ধে এবার পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা (নং-০৬ তাং-১৯/৮/২২) দায়ের করেছে তারই দায়েরকৃত ধর্ষন মামলার প্রধান আসামী আ’লীগ নেতা ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আখতারুজ্জামান
বাচ্চু। শনিবার (২০ আগষ্ট) ধর্ষন মামলার ভিকটিমের বিরুদ্ধে আসামীর মামলা দায়েরের বিষয়টি জানাজানি হলে ঝালকাঠি-নলছিটিবাসীসহ সামাজিক যোগাযোগ
মাধ্যমে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। নলছিটি থানার এসআই মফিজ উদ্দিনকে দ:বি: ২০১২ সনের পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনের ৮(১) ৮(২) ৮(৩) ৮(৫)/(ক) ধারায় দায়েরকৃত মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়েছে।

তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মফিজ উদ্দিন জানান, বাদী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও কুলকাঠি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আখতারুজ্জামান বাচ্চু তার মামলার অভিযোগে ‘তার ছবি এডিটিংয়ের মাধ্যমে অশ্লীল আকৃতি বানিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার ও বিভিন্ন ব্যক্তির কাছে সরবরাহ
করার’ দাবী করেছে। মামলায় লামিয়া আক্তারকে নামধারী সহ অজ্ঞাত নামা আরো ৪/৫জনকে আসামী করা করা হয়েছে বলে জানাগেছে।
এদিকে ধর্ষন মামলার ভিকটিম অসহায় লামিয়া আক্তারের মা রানী বেগম জানায়, তার মেয়ে লামিয়াকে চাকুরী দেয়ার কথা বলে বাচ্চু চেয়ারম্যান ধর্ষন করার ঘটনায় মামলা দায়েরের পর থেকে পরিবারের সবাই নিরাপত্তাহীনতায় দিন
কাটাচ্ছেন। চেয়ারম্যান বিভিন্ন লোক দিয়ে হুমকি-ধামকি  দেয়ায় লামিয়ার বাবা কৃষক আইউব আলী হাং, চাচাসহ পরিবারের সবাই আতংকে দিন কাটাচ্ছে। বাচ্চু
চেয়ারম্যান বহু মেয়ের ইজ্জত নিয়েছে তাতে তার কিছু না হওয়ায় সে আমার মেয়ের ইজ্জত নিয়েও ভেবেছে কিছুই হবেনা। আমার মেয়ে দেলদুয়ার স্কুলের চেয়ারম্যানের স্ত্রীর ছাত্রী ও চেয়ারম্যান সেই স্কুলের সভাপতি হওয়া সত্বেও তার নারীলিপ্সা থেকে রেহাই পায়নি।

উল্লেখ্য কুলকাঠির সরই গ্রামের লামিয়া আক্তার কে ধর্ষণের অভিযোগে  গত ১০ফেব্রুয়ারি ঢাকা খিলগাঁও থানায় চেয়ারম্যান এইচ এম আক্তারুজ্জামান বাচ্চু ও তার সহযোগী মোর্শেদা বেগমের (৩৫) বিরুদ্ধে ধর্ষন ও গর্ভপাতের অভিযোগে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা (নং-২২/১১২) দায়ের করেন।