নালিতাবাড়ী উপজেলা হাসপাতালের প্রধান কর্মকর্তার অনিয়ম দূর্নীতির তদন্ত টিম গঠন

নালিতাবাড়ী উপজেলা হাসপাতালের প্রধান কর্মকর্তার অনিয়ম দূর্নীতির তদন্ত টিম গঠন
ছবিঃ সংগৃহীত

রাকিবুল আউয়াল পাপুল।। শেরপুর।। ০৪ এপ্রিল, রবিবার।। নালিতাবাড়ী(শেরপুর): শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ রেহমা সারওয়াত সালমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগ করার পর তদন্ত কমিটি গঠন ।

গত ২২ ফেব্রুয়ারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রায় ৩৭ জন কর্মচারী তার বিরুদ্ধে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন ।লিখিত অভিযোগের প্রক্ষিতে অধিদপ্তর ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন । তদন্ত কমিটিতে রয়েছেন ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের একজন সহকারী পরিচালক জামালপুর সিভিল সার্জন অফিসের একজন মেডিক্যাল অফিসার সহ মোট ৩ জন ।লিখিত অভিযোগে বলা হয়েছে, ডা: রেহমা সারওয়াত সালমা এডহক নিয়োগ প্রাপ্ত হয়ে নালিতাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কপ্লেক্সে যোগদান করেন ।যোগদান করার পর থেকে তিনি নিয়মিত ভাবে কর্মস্থলে থাকেন না।প্রতি সপ্তাহে মাত্র ২দিন থেকে ৩ থাকেন , বাকী সময় ছুটি না নিয়ে ঢাকায় অবস্থান করেন । নিয়ম বহির্ভূতভাবে তিনি সরকারী গাড়ী ব্যবহার করে ঢাকায় যাতায়াত করেন ।

লিখিত অভিযোগে আরও বলা হয়েছে, ভালো থাকা এ্যামবুলেন্স মেরামত ও যন্ত্রাংশ কিনার নামে প্রতিমাসে ১৫-২০ হাজার টাকা উত্তোলণ করে আত্মসাৎ করেন। এ্যামবুলেন্সের ৫৫-৬০ হাজার টাকা গ্যাস ও প্রেট্রোল বাবদ প্রতি মাসে ৪০ হাজার টাকা ড্রাইভারের মাধ্যমে বিল ভাউচার প্রস্তুত করে সরকারী টাকা হাতিয়ে নেন তিনি ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে কমপ্লেক্সের আসবাবপত্র মেরামত ,পরিষ্কার-পরিছন্নতা , ইলেক্ট্রনিক্স যন্ত্রপাতি, হোমিওপ্যাথিক ঔষুধ ও অন্যান্য ঔষুধ কেনার নামে মিথ্যা ভাউচার তৈরী করে ১০ লক্ষ টাকা আত্মসাত করেছেন । তার বিরুদ্ধে আরও অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, জাতীয় স্বাস্থ্য সহকারীদের হাম-রুবেলা ক্যাম্পেইন কর্মসূচির বাজেটের ১০লক্ষ টাকা আত্মসাত করার জন্য কর্মচারীদের বিল আটক রেখে তাদের সাথে দীর্ঘদিন খারাপ আচরন করেন । এছাড়াও অভিযোগ প্রকাশ করা হয়েছে তিনি জাতীয় দিবস গুলিতেও কর্মস্থলে উপস্থিত থাকেন না । একজন স্বাস্থ্য সহকারীর ১৭ হাজার টাকার বিলে ৫ হাজার টাকা ঘুষ গ্রহন করেছেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে । এছাড়া কোভিড-১৯ এর কার্যক্রমের নামে ৩ লক্ষ টাকা আত্মসাত করার অভিযোগ রয়েছে । বাগান সৃজন না করেই অল্টারনেটিভ মেডিক্যাল কেয়ার ভেষজ বাগানের নামে কাগজে কলমে সৃজন দেখিয়ে ১ লক্ষ টাকা নিজের পকেটে তুলেছেন বলে অভিযোগ আছে।

এ ব্যপারে ডা: রেহমা সারওয়াতের সাথে কথা হলে তিনি জানান উল্লেখিত অভিযোগ মিথ্যা ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত । উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বরাবরে দেওয়া আভিযোগ সম্পর্কে তিনি কিছু জানেন না বলে জানান। উর্ধতন কর্তৃপক্ষের তদন্ত করে প্রকৃত সত্য বের করার প্রয়োজন বলে মনে করেন তিনি । পাশাপাশি তিনি গণমাধ্যমের কাছে অভিযোগটির ব্যাপারে আরও তথ্য সংগ্রহ করে প্রকৃত ঘটনা প্রকাশ করার দাবী করেন ।