নীলফামারীতে সমবায় সমিতির ৬ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে লাপাত্তা, মূল হোতা গ্রেফতার

নীলফামারীতে সমবায় সমিতির ৬ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে লাপাত্তা, মূল হোতা গ্রেফতার

নীলফামারীতে সমবায় সমিতির ৬ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে লাপাত্তা, মূল হোতা গ্রেফতার

জাহিদুল হাসান জাহিদ/স্টাফ রিপোর্টার।।নীলফামারীতে সমবায় সমিতির আড়ালে ৬ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে লাপাত্তা হওয়া সংঘবদ্ধ চক্রের মুল হোতাকে ঢাকাস্থ সাভার থেকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। গ্রেফতারকৃত হলেন, মোঃ মামুন হাসান মালিক@আদম সুফি (৪৫)।

বৃহস্পতিবার(১৮ফেব্রুয়ারী), র‌্যাব-১৩ এর ক্রাইম প্রিভেনশন কোম্পানী (সিপিসি-২) কর্তৃক র‌্যাব ক্যাম্পে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিং এর প্রেস বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী জানা যায়, ২০২০ সালের নভেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে প্রতারনা করার উদ্দেশ্যে মোঃ মামুন হাসান মালিক@আদম সুফী (৪৫) তার সহযোগীদের সাহায্যে নীলফামারী জেলার ডোমার থানার সাহাপাড়াস্থ ছানু সরকার এর প্রাক্তন কুইন্স কিন্টার গার্ডেন নামক স্কুল ঘরটি ভাড়া নিয়ে “ডোমার বাজার ভোগ্য পণ্য সমবায় সমিতি” নামীয় ব্যানার লাগিয়ে এলাকার সহজ সরল নারীদের টার্গেট করে। প্রতারক চক্রটি সমবায় সমিতির মাধ্যমে বিভিন্ন লোভনীয় পণ্য সামগ্রী সমিতির সদস্যগণ যে মূল্য দিয়ে ক্রয় করতে ইচ্ছুক তাকে মূল্য বাবদ সেই পণ্যটি দেওয়া হবে এছাড়াও সাত দিনের মধ্যে মূল টাকাসহ ১০% থেকে ৩০% লভ্যাংশ ফেরত দেয়া হবে, এই মর্মে ১৮ থেকে ৪০ বছরের নারীদের’কে উদ্বুদ্ধ ও প্রলুব্ধ করতে থাকে । সমবায় সমিতির মাধ্যমে কয়েকজন নারী সদস্য প্রাথমিকভাবে তাদের প্রতিশ্রæতি অনুযায়ী মূল টাকাসহ লভ্যাংশ প্রাপ্ত হওয়ায় এলাকার অধিক সংখ্যক মহিলাগণ নিজেদের সহায় সম্বল বিক্রয়ের অর্থ দিয়ে এই চটকদার সমিতির সদস্য হোন। সমবায় সমিতির আড়ালে এই প্রতারক চক্রটি মাত্র দুই মাসে ৬ কোটি টাকা সংগ্রহ করে এবং একপর্যায়ে আত্মসাতের উদ্দেশ্যে সমিতির অফিস বন্ধ করে পালিয়ে যায়। বিভিন্ন জাতীয় ও আঞ্চলিক গণমাধ্যম প্রকাশ করে যে, খোঁয়া যাওয়া টাকা উদ্ধার করতে না পারায় ভুক্তভোগী কয়েকজন নারী তাদের স্বামী কর্তৃক তালাক প্রাপ্ত হয় এবং একই ঘটনায় একজন মহিলা টাকা হারানোর আতংকে হৃদ রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। টাকা হারিয়ে সর্বশান্ত সহস্রাধিক নারী এবং ঐ কোম্পানীর প্রায় শতাধিক নারীকর্মী ভুক্তভোগীরা গত ২০ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখে প্রধানমন্ত্রী বরাবর, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে স্মারকলিপি প্রদান করেন।
টাকা উদ্ধারের জন্য নীলফামারী জেলার ডোমার থানায় গত ২৪ জানুয়ারি ২০২১ তারিখে ৪ জন প্রতারকের নামে একটি প্রতরণার মামলা দায়ের করেন যার মামলা নং ০৪ এবং র‌্যাব-১৩, সিপিসি-২, নীলফামারী কোম্পানী কমান্ডার বরাবর একটি অভিযোগ দায়ের করেন ভুক্তভোগীরা
বিভিন্ন জাতীয় এবং আঞ্চলিক সংবাদ মাধ্যমে চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ধারাবাহিক ভাবে গুরত্বসহকারে প্রকাশ করে। র‌্যাব কর্তৃক উক্ত ঘটনাটি অবগত হওয়ার পরপরই বিশদ অনুসন্ধান এবং তদন্ত পরিচালনা করা হয়। এক পর্যায়ে আমরা জানতে পারি যে, সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রের মূল হোতা মোঃ মামুন হাসান মালিক আদম সুফী (৪৫) ঢাকায় তার এক নিকট আত্মীর বাসায় গোপনে অবস্থান করছে। এরই ধারাবাহিকতায় অদ্য ১৭ ফেব্রæয়ারি ২০২১ খ্রিঃ ১৮.০০ ঘটিকায় র‌্যাব-১৩ এর একটি আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ছয় কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়া প্রতারক চক্রের মূল হোতা মোঃ মামুন হাসান মালিক@আদম সুফি (৪৫)’কে সাভার, ঢাকা থেকে গ্রেফতার করে।

র‌্যাব-১৩ জানায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে, আটককৃত প্রতারক মোঃ মামুন হাসান মালিক@আদম সুফি (৪৫) নীলফামারী জেলার ডোমার থানায় সংঘটিত প্রতারণার সাথে তার সম্পৃক্ততার কথা স¦ীকার করেছে। তার সাথে জড়িত অন্যান্য প্রতারকদের আইনের আওতায় আনার জন্য আমাদের কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।