নড়িয়ায় স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে পাষণ্ড স্বামী

নড়িয়ায় স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে পাষণ্ড স্বামী
ছবিঃ সংগৃহীত

মোঃ নাহিদ হোসেন।  নড়িয়া উপজেলা প্রতিনিধি।।শরিয়তপুর জেলায় নড়িয়া উপজেলার লোনসিং গ্রামের হারুনারশিদ সরদারের (৭৫) মেয়ে মোসাঃ রিনা বেগম (৪০) এর সাথে বিবাহ হয় ২০ বছর আগে, ভেদরগন্জ থানার ছয়গাঁও ইউনিয়নের নাজিরপুর গ্রামের  স্থানীয় বাসিন্দা মৃত্য মোঃ সাদেক আলি কাজির ( ৪ )  চতুর্থ  সন্তান, মোঃসেকেন্দার কাজি ( ৪৫)  এর সাথে, বিয়ের পর থেকে এ পর্যন্ত যৌতুকের জন্য বিভিন্ন সময় মারধর করে আসছিলো এবং এলাকার কিছু কুচক্রী  মানুষ বিভিন্ন সময় মোসাঃ রিনা বেগমের সমন্ধে তার স্বামীর কাছে নানারকম মিথ্যা অপবাদ দিচ্ছিল। তাদের ঘরে দুই ছেলে এবং দুই মেয়ে আছে , ১০ অক্টোবর ২০২১ আনুমানিক রাত তিন টার দিকে ৩০০০০ টাকা যৌতুক আনা এবং সন্দেহের কারনে ঝগড়ার সৃষ্টি হয় এরপর মোসাঃ রিনা বেগমের স্বামী পরিকল্পিত ভাবে মুখের ভিতর  কাপড় ঢুকিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে, এ ব্যাপারে তার বড়  মেয়ের সাথে কথা বলে জানা যায় তার বাবা বিভিন্ন সময় তার মাকে এবং মেয়েদেরকে  টাকার জন্য মারধর করতো।

স্থানীয় ইউপি মেম্বার এবং  আশেপাশের লোকজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, মোঃ সেকেন্দার এবং তার ভাইয়েরা আশেপাশে মানুষের সাথে বিভিন্ন সময় ঝগড়া বিবাদে লিপ্ত থাকতো এবং তাদের স্থানীয় কিছু লোক উৎসাহ দিত এবং আরো জানান, মোঃ সেকেন্দার মাদকাসক্ত ছিলেন মাদকের টাকা না পেলে তার স্ত্রী মোসাঃ রিনা বেগমকে মাঝে মাঝেই   মারধর করতো।

ঘটনার পর ভেদরগন্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  উপস্থিত হন এবং মৃতদেহটিকে ময়নাতদন্তের জন্য হসপিটালে প্রেরণ করা হয়। ভেদরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান ময়নাতদন্তের পর তার বিরুদ্ধে মামলা করা হবে , এ ব্যাপারে এলাকায় চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। এলাকাবসী এবং মোসাঃ রিনা বেগম এর স্বজনদের দাবি মোঃ সেকেন্দার এবং তার সাথে যারা জড়িত তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়।