পেকুয়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তি এখানো অধরা ইকবাল ইউনুছ: জনমনে ক্ষোভ!

পেকুয়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তি এখানো অধরা ইকবাল ইউনুছ: জনমনে ক্ষোভ!
ছবি: সংগৃহীত

নিজস্ব প্রতিনিধি।। কক্সবাজার।।কক্সবাজারের পেকুয়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে কটুক্তির অভিযোগে পেকুয়া থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়েরের এক সপ্তাহ পার হলেও মামলার প্রধান আসামী উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোছাইনও দল বদলকারী হিসেবে পরিচিত ও বহু মামলার আসামী মগনামার ইউপি চেয়ারম্যান ইউনুছ চৌধুরীসহ মামলার বাকি আসামীরা গ্রেফতার না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থাণীয়রা।

স্থাণীয় আওয়ামীলীগ সমর্থকেরা বলেন, মামলার দায়েরের সপ্তাহ পার হয়ে যাচ্ছে কিন্ত আমরা কাউকে গ্রেফতার করতে দেখছিনা। প্রশাসন কেন নিরব ভুমিকা পালন করছেন জানিনা। যারা সরকারি ইউনিয়ন পরিষদে বসে প্রকাশ্যে মহিলা দলের সভায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে মাইক ধরে কটূক্তি করে তাদের অতি দ্রুত শাস্তি হওয়া দরকার। শুধু তাই নয় এই আয়োজনে যারা সমর্থন দিয়েছেন অনুমতি দিয়েছেন এবং প্রচার করেছেন তাদের ও দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তি হওয়া দরকার বলে মনে করেন তারা। তারা বলেন, অতি দ্রুত তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হোক।
এদিকে গত ২১ জুলাই উপজেলা পরিষদের হল রুমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চকরিয়া পেকুয়া আসনের সংসদ জাফর আলম বলেন, ইকবাল, ইউনুছ এখনো গ্রেফতার না হওয়া বড়ই দুঃখজনক। তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তি কারীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি ও সামাজিকভাবে তাদের বয়কটের দাবি জানান।
জানা যায়, গত ১৬ জুলাই শনিবার মগনামা ইউনিয়ন পরিষদে মগনামা ইউনিয়ন মহিলা দলের সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা বিএনপির সাধারণ ইকবাল হোছাইন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার দল আওয়ামী লীগ এবং বর্তমান সরকারের মন্ত্রীদের নিয়ে কটূক্তি করেন। কটুক্তির ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে চারিদিকে নিন্দার ঝড় উঠে। তারপর পরই উপজেলা আওয়ামী লীগ, বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ করেন। বিক্ষোভ সভায় বক্তারা কটুক্তির ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টন্তমুলক শাস্তি দাবি করেন। 
তারপর পরই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম বাদী হয়ে পেকুয়া থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোছাইন, মগনামা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইউনুছ চৌধুরী, পেকুয়া উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক ফরহাদ হোছাইন, মগনামা ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আবু তাহের হেলালি ও মগনামা ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি আমিনুল কবির রানার বিরুদ্ধে মামলা রুজু করেন। 
মামলার বাদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম বলেন, ‘গত শনিবার ১৬ জুলাই বিকেলে মগনামা ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের নিচ তলায় ইউনিয়ন মহিলা দলের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোছাইন বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রী ও  আওয়ামী লীগ দলকে অশ্রাব্য ভাষায় গালমন্দ করেন। বক্তব্যে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিশ্রী ভাষায় কটূক্তি করেন। মামলার অপর আসামিদের যোগসাজশে সরকারি প্রতিষ্ঠানের ভবনে দাঁড়িয়ে তার এ ধৃষ্টতা দেশের প্রচলিত আইনে অপরাধ। তাই সরকার প্রধানকে নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদে এই মামলা দায়ের করেছি এবং তিনি তাদের দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তি দাবি করেন এবং অতি দ্রুত তাদের গ্রেফতার দাবি করেন।
এদিকে স্থানীয়রা এঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারসহ দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবি করেছেন।