পাবনায় আ.লীগ নেতাকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা

পাবনায় আ.লীগ নেতাকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা
ছবি: সংগৃহীত

পাবনার হেমায়েতপুরে পৌর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য সাইদার রহমান মালিথাকে (৫০) প্রকাশ্য দিবালোকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।

শুক্রবার (৯ সেপ্টেম্বর) দুপুর সদর উপজেলার হেমায়েতপুর ইউনিয়নের বাঙ্গাবাড়িয়া মুজিব বাঁধ এলাকায় এ হত্যাকাণ্ড ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুপুর দেড়টার দিকে সাইদার বাঙ্গাবাড়িয়া বাজারে বাঁধের একটি দোকানে বসে ছিলেন। এ সময় মোটরসাইকেল যোগে একদল সন্ত্রাসী হেলমেট পরিহিত অবস্থায় এসে তাকে ঘিরে ধরে। এরপর তাকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি ছুড়তে থাকে। এতে ঘটনাস্থালেই তার মৃত্যু হয়। বিষয়টি দেখতে পেয়ে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে গেলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

নিহত সাইদার রহমানের নাতি সাদ্দাম মোল্লা জানান, দুপুরে ফোন করে তিনি (সাইদার) তাকে (সাদ্দাম) ডাকেন। বাজারে কথা বলা শেষ করে জুমার নামাজ পড়ার জন্য বাড়ির দিকে রওনা হওয়ার ১০ মিনিটের মধ্যেই হত্যাকাণ্ড ঘটে।

নিহতের স্ত্রী দিলরুবা জাহান বলেন, সাইদার রহমানের সাথে হেমায়েতপুর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন মালিথার জমি জমা নিয়ে বিরোধ ছিল। কয়েকদিন ধরে আলাউদ্দিন তাকে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছিলেন। বৃহস্পতিবারও আলাউদ্দিন সাইদারকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছেন। আজ প্রকাশ্যে তাকে মেরে ফেলা হলো।

এখন তিন নাবালক সন্তান নিয়ে কী করবেন এই প্রশ্ন রেখে দিলরুবা বলেন, যারা তার স্বামীকে হত্যা করেছে তাদের শাস্তি চান।

এ ব্যাপারে হেমায়েতপুর ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম বলেন, জমি নিয়ে আলাউদ্দিন ও সাইদার রহমানের বংশগত বিরোধ দীর্ঘদিনের। তার জেরে দুই পক্ষের মধ্যে বেশ কয়েকবার মারামারি হয়েছে। হত্যাকাণ্ডো সেই বিরোধের জেরে বলে শুনেছেন।

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধারের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পূর্ব শত্রুতার জেরে এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। পুলিশ সুপার আকবর আলী মুন্সী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করে হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারে কাজ শুরু করেছে পুলিশ।