প্রতীক পছন্দ না হওয়ায় নির্বাচন করছেনা প্রার্থী

প্রতীক পছন্দ না হওয়ায় নির্বাচন করছেনা প্রার্থী
ছবিঃ সংগৃহীত
স্টাফ রিপোর্টাের, ঠাকুরগাঁও।। আগামী ২৮ তারিখের ইউপি নির্বাচন ঘিরে ঠাকুরগাঁও জেলায় চলছে তুমুল উত্তেজনা। প্রতীক বরাদ্দের পর থেকেই প্রার্থীরা মাঠে নেমেছে নির্বাচনী প্রচারণায়। ভোটারদের মনযোগানো আশ্বাস দিয়ে মন জয় করার চেস্টা করছে। নির্বাচনী এলাকা গুলো ছেয়ে গেছে বিভিন্ন পোস্টারে।
তবে একজন চেয়ারম্যান প্রার্থীর ক্ষেত্রে দেখা গেছে ভিন্ন চিত্র। তার নির্বাচনী এলাকায় নেই কোনো পোস্টার। নেই কোনো প্রচার মাইকিং। ভোট চাইতে ভোটারের দারে দারেও যাচ্ছেন না সেই প্রার্থী। জানাগেছে প্রতীক পছন্ন না হওয়ায় নির্বাচনি প্রচারণায় নামেনি তিনি।
আসন্ন তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে ঠাকুরগাঁও জেলার ১৮ টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। যার মধ্যে বালিয়াডাঙ্গি উপজেলার চাড়োল ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ০৫ জান প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। এই ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মঈন উদ্দিন পেয়েছেন রজনিগন্ধা প্রতীক। তবে এই প্রতীকটি তার পছন্দ হয়নি।
এই স্বতন্ত্র প্রার্থী মঈন উদ্দিন বলেন, আমি নির্বাচন কমিশনের কাছে ছাতা মার্কা চেয়েছিলম। কিন্তু তাড়া সেই প্রতীক আমাকে দেয়নি, দিয়েছে রজনিগন্ধা প্রতিক। এই প্রতীকটি আমার একদম পছন্দ হয়নি। প্রতীকের কথা শুনেই মন ভেঙ্গে গেছে। প্রতীক পছন্দ না হওয়ায় আমি নির্বাচন করছিনা। ছাতা মার্কা দিলে আমি অবশ্যই নির্বাচন করে জয়যুক্ত হতাম।
চাড়োল ইউনিয়নের ভোটার রব্বানী শেখ বলেন, শুনেছি আমাদের ইউনিয়নে ০৫ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী। কিন্তু এলাকায় ০৪ জন প্রার্থীর তোরজোড় প্রচার ও পোস্টার দেখা যাচ্ছে। একজন প্রার্থীর কোনো খোজ খবরই পাচ্ছি না। সেটা কে তাও বুঝতে পারছিনা।
এই বিষয়ে চাড়োল ইউনিয়নে দায়িত্বরত রিটার্নিং অফিসার শুবত চন্দ্র রায় জানান, চেয়ারম্যান প্রার্থী মঈন উদ্দিন আমাদের কাছে ছাতা মার্কার জন্যে আবেদন করেছিল। তবে চেয়ারম্যান প্রার্থীদের জন্যে এই প্রতীক দেওয়ায় কোনো সুযোগ না থাকায় দিতে পারিনি। তাই তাকে রজনিগন্ধা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এর জন্যে সে মন খারাপ করে নির্বাচন করছেনা বিষয়টা অদ্ভুত।