প্রবীণদের সুরক্ষায় সাংস্কৃতিক মুক্ত মঞ্চ ও ভাতার পরিমান বৃদ্ধিসহ নীতিমালা বাস্তবায়ন চাই

প্রবীণদের সুরক্ষায় সাংস্কৃতিক মুক্ত মঞ্চ ও ভাতার পরিমান বৃদ্ধিসহ নীতিমালা বাস্তবায়ন চাই
ছবিঃ সংগৃহীত

মানিকগঞ্জ থেকে গাজী শাহাদাত হোসেন বাদল।।আন্তর্জাতিকভাবে প্রতিবছরই দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরে মূল প্রতিপাদ্য নির্ধারন করা হয়। "বৈশ্বিক মহামারীর বার্তা প্রবীণদের সেবায় নতুন মাত্রা” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বিশ্বব্যাপী সরকারি ও বেসরকারি ভাবে পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস।তারই ধারাবাহিকতায় বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিক মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার  বেতিলা মিতরা ইউনিয়নে বেতিলা অঞ্চলের গ্রীণ ফ্লাওয়ার  কেজি স্কুল মিলনায়তনে বিকেল ৩.০০ ঘটিকা থেকে সন্ধা ৬.০০ ঘটিকা পর্যন্ত ৩১ তম আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনাসভা ও সংগ্রামী প্রবীণদের সম্মাননা প্রদান করা হয়।

আলোচনাসভা ও পুরুস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও প্রবীন অধিকারকর্মী বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান এর সভাপতিত্ত্বে বারসিক প্রোগ্রাম অফিসার মো. মাসুদুর রহমান এর সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশগ্রহন করেন বেতিলা মিতরা ইউনিয়ন পরিষদের দীর্ঘদিনের টানা তিন দশকের  ইউপি সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান জনাম মো. জাকির হোসেন, সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য জনাব জাহানারা বেগম, বারসিক আঞ্চলিক সমন্বয়কারি বিমল রায়, ইউপি সদস্য মো. রনি দেওয়ান, সাবেক ইউপি সদস্য জনাব মো. বেল্লাল হোসেন, বারসিক কর্মকর্তা মো.শিমুল কুমার বিশাস, মো. নজরুল ইসলাম, গাজী শাহাদাত হোসেন বাদল  ও মো.শাহিনুর রহমান প্রমুখ। সংগীত পরিবেশন করেন সাবেক ইউপি সদস্য ও বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী জনাব মো. ইউসুফ হোসেন ও তার দল। এছারাও উপস্থিত ছিলেন সরকারি দেবেন্দ্র কলেজের প্রাণীবিদ্যা বিভাগের প্রদর্শক ও বিশিষ্ট লালন গবেষক মো.ওসমান মিয়া।


বক্তারা বলেন সরকার প্রবীণ নীতিমালা করেছেন ভরণ পোষনে অবাধ্যদের বাধ্য করতে আমরা চাই আর যেন কোন প্রবীণ বৃদ্ধাশ্রমে তাদের ঠিকানা না হয়। আমরা আরো চাই প্রবীণরা পেনশনের আওতাভুক্ত হোক,তাদের ভাতার পরিমান ও সংখ্যা শতভাগ করতে হবে। নারী ও প্রবীণবান্ধব সমাজ বিনির্মামন করতে হলে অবশ্যই সাংস্কৃতিক চর্চাকে বেগবান করতে হবে তাই প্রত্যেকে ইউনিয়ন পর্যায়ে একটি করে মুক্ত মঞ্চ করতে হবে। অনুষ্ঠানে প্রায় দুই শতাধিক নারী পুরুষ উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য যে -আমাদের দেশে মোট জনসংখ্যার একটি বিরাট অংশ প্রবীণ। প্রবীণরাই এই দেশ সমাজ তথা পরিবারের জন্য এক সময় বিরাট অবদান রেখেছেন। ২০২১ সাল স্বাধীনতার রজতজয়ন্তী অর্থাৎ স্বাধীনতার অর্ধশতাব্দী অতিক্রান্ত হবে। স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধ করেছিলেন এ দেশটাকে স্বাধীন করেছিলেন তাদেরও অনেকে আজ কম বেশী বার্ধক্যের দ্বারপ্রান্তে উপনীত।
বার্ধক্যের স্বাদ সবাইকে গ্রহন করতে হবে জন্মিলে যেমন মৃত্যু অনিবার্য, তেমনী বেচেঁ থাকলে প্রত্যেক মানুষকেই বার্ধ্যকের স্বাদ গ্রহন করতে হবে। এ থেকে কোনো নিস্তার নাই। উল্লেখ্য জাতিসংঘের আহ্বানে ১৯৯১ সাল থেকে অক্টোবর মাসের ১ম দিনটিকে সারা বিশ্ব আর্ন্তজাতিক প্রবীণ দিবস হিসেবে পালন করা হচ্ছে।