পারিশার মোবাইল বিক্রি করে মদ কিনে খায় ছিনতাইকারী দুইজন

পারিশার মোবাইল বিক্রি করে মদ কিনে খায় ছিনতাইকারী দুইজন
ছবি: সংগৃহীত

তানভীর আহমেদ।। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি।। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী পারিশার মোবাইল ছিনতাইয়ের ঘটনা সারা বাংলাদেশে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে। কোন নারীর মোবাইল ছিনতাইয়ের পর তাকে সে নিজের হাতে ধরে শায়েস্তা করার মত ঘটনা রাতারাতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। সেইদিন প্রকৃত ছিনতাইকারীর খোঁজ না পাওয়া গেলেও পুলিশের বেশ কয়েকটি টিম কাজ করে যায় ছিনতাইকারী গ্রেফতার করতে। 

পরবর্তীতে রাজধানীর কারওয়ান বাজার সিগন্যালে একটি যাত্রীবাহী বাস থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ছাত্রী পারিশা আক্তারের মোবাইল ফোন ছিনতাইয়ের ঘটনায় ২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেফতার হওয়া দুই যুবকের নাম রাশেদুল ইসলাম (১৭) ও রিপন ওরফে আকাশ (২৪)। 

পুলিশ জানায়, মোবাইলটি ৪ হাজার টাকায় বিক্রি করেছিলেন গ্রেপ্তার হওয়া দুই ছিনতাইকারী। ওই টাকার মধ্যে তারা উভয়ে ১ হাজার টাকা করে নিয়ে বাকি দুই হাজার টাকায় মদ কিনে খেয়েছিলেন

আজ বুধবার (৩ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর তেজগাঁও থানা কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান তেজগাঁও বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) রুবাইয়াত জামান।

উল্লেখ্য, গত ২১ জুলাই (বৃহস্পতিবার) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে পারিশা মিরপুর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ফেরার সময় রাজধানীর কারওয়ান বাজার ট্রাফিক সিগন্যালে বাসে বসে ছিলেন। তখন ছিনতাইকারী জানালার ভিতর হাত দিয়ে ফোনটি ছিনিয়ে নেয়। এরপর বাস থেকে নেমে পারিশা ২ জন ছিনতাইকারীকে ধরে পুলিশের হাতে তুলে দেন। তবে নিজের ফোন ছিনতাইকারীকে ধরতে পারেননি তিনি।

ওই সময়ে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী পারিশা গণমাধ্যমকে বলেন, মোবাইল ফোনে তার থিসিসের সব ডকুমেন্টস এবং প্রয়োজনীয় তথ্য ছিল। তার থিসিস জমা দেওয়ার সময় ঘনিয়ে আসছে। তাই ফোনের জন্য এত চিন্তা। তিনি দ্রুত ছিনতাইকারীকে গ্রেপ্তার ও ফোন উদ্ধারের দাবি জানিয়েছিলেন।