পলাশবাড়ীতে চিরনিদ্রায় শয়িত হলেন মাষ্টার আনিছুরসহ পরিবারের ৪ সদস্য,এলাকায় শোকের ছায়া।

পলাশবাড়ীতে চিরনিদ্রায় শয়িত হলেন মাষ্টার আনিছুরসহ পরিবারের ৪ সদস্য,এলাকায় শোকের ছায়া।
ছবিঃ সংগৃহীত

আবু তাহের। স্টাফ রিপোর্টার।। ১৬ এপ্রিল, শুক্রবার।। এক মাস বয়সের শিশু সন্তানকে ডাক্তার দেখিয়ে গোবিন্দগঞ্জ থেকে অটোভ্যান যোগে বাড়ী ফেরার পথে কাভার্ড ভ্যান চাপায় নিহত হন পলাশবাড়ী উপজেলার বরিশাল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আনিছুর রহমান,মা রেহেনা বেগম, স্ত্রী রাজিয়া সুলতানা ও শ্যালক জাহিদ হাসান। 

১৫ এপ্রিল বাদ জোহর বরিশাল ইউনিয়নের রামপুরা গ্রামে নামাযে জানাযা শেষে মাষ্টার আনিছুর রহমান, মা রেহেনা বেগম ও স্ত্রী রাজিয়া সুলতানাকে পাশাপাশি  দাফন করা হয়। শ্যালক জাহিদকে কালিতলা দুর্গাপুর গ্রামে দাফন করা হয়। 
উল্লেখ্য: ১৪ এপ্রিল সন্ধ্যায় ঢাকা-রংপুর মহাসড়কের কালিতলা নামক স্থানে একটি মাল বোঝাই কাভার্ডভ্যান যাত্রীবাহী অটো ভ্যানকে চাপা দিলে অটোটি দুমড়ে মুচড়ে গিয়ে ৭জন গুরুতর আহত হয়। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের দূর্গপুরের গ্রামের আবু তাহেরের ছেলে জাহিদ(২০)মারা যায়। 
পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে পলাশবাড়ী উপজেলার বরিশাল ইউনিয়নের রামপুরা গ্রামের মৃত ইসহাক আলীর ছেলে বরিশাল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আনিছুর রহমান(৩০)
এবং বগুড়া হাসপাতালে নেয়ার পথে আনিছুর রহমানের মা রেহেনা বেগম(৪৫) ও স্ত্রী রাজিয়া সুলাতানা(২৫)মারা যায়।
এছাড়াও বৃহস্পতিবার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অটো চালক লেবু মিয়া মারা গেছেন।এঘটনায় মোট ৫ জন নিহত হয়। 
গোবিন্দগঞ্জ হাইওয়ে থানার ওসি খায়রুল ইসলাম  দুঘর্টনার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় ঘাতক কাভার্ড ভ্যানটিকে আটক করা হয়েছে।
একই পরিবারের ৪ জনসহ ৫ জন নিহতের ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।এদিকে নিহত আনিছুর রহমান মাষ্টারের এক মাসের শিশু সন্তানটি রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আসংকাজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন।