পলাশবাড়ীতে দুর্বৃত্তের হামলায় গুরুতর আহত সাংবাদিক বকুলকে দেখতে গেলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ

পলাশবাড়ীতে দুর্বৃত্তের হামলায় গুরুতর আহত সাংবাদিক বকুলকে দেখতে গেলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ
ছবিঃ সংগৃহীত

আবু তাহের।।  স্টাফ রিপোর্টার।। ০৯ এপ্রিল, শুক্রবার।। গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে দুর্বৃত্তের হামলায় গুরুতর আহত সাংবাদিক বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান বকুল উদ্দিন সরকারকে দেখতে গেলেন পলাশবাড়ী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান উপজেলা আ'লীসহ-সভাপতি ও প্রেস ক্লাব পলাশবাড়ীর কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আলহাজ্ব একেএম মোকছেদ চৌধুরী বিদ্যুতসহ ক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

বুধবার (৭এপ্রিল) সন্ধায় পৌরশহরের (২নং ওয়ার্ড) গৃধারীপুর সরকারপাড়ায় বকুল উদ্দিনের নিজ বাসায় গিয়ে তাঁর স্বাস্থগত খোঁজখবর নেন তিনি।

প্রেস ক্লাব পলাশবাড়ী'র সভাপতি মো. মনজুর কাদির মুকুল, সাধারণ সম্পাদক মো. আবুল কালাম আজাদ, সহ-সভাপতি আরিফ উদ্দিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রফিক, সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান রুবেল, কোষাধ্যক্ষ জিন্নাতুল কবির জিন্নাহ, ক্রীড়া সম্পাদক তাজুল ইসলাম, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মো. মনিরুজ্জামান মিথুন, দপ্তর সম্পাদক আল কাদরি কিবরিয়া সবুজ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এটিএম মেহেদী হাসান, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক মো. মুক্তাদীর ঈমাম মিথুন এবং ক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির অন্যান্য সদস্য ছাড়াও সাধারণ সদস্যবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন।

আহত সাংবাদিক মো. বকুল উদ্দিন সরকারকে শান্তনা দিতে গিয়ে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ এসময় বলেন দুর্বৃত্তের ছদ্মাবরণে কোন সন্ত্রাসী কার্যকলাপ নয়। সাংবাদিকরা হলেন কলম সৈনিক। তাঁরা সবসময় নিপীড়িতসহ সর্বস্তরের জনমানুষের কথা বলে। দেশ ও জনতা ছাড়াও অবহেলিত জনগোষ্ঠীর কথা। একজন সাংবাদিক কলম হাতে নিয়ে কখনোই অপরাধ কিংবা সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে লিপ্ত হতে পারে না। স্ব-স্ব পেশাগত উৎকর্ষতা-দক্ষতা ও অভিজ্ঞতালদ্ধ অর্জন যথাযথ কাজে লাগিয়ে সময়মত সব অপকর্মের সমুচিত জবাব দেয়া হবে ইনশাআল্লাহ।