পলাশবাড়ীতে শিক্ষকের অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকার অসহায় পরিবার 

পলাশবাড়ীতে শিক্ষকের অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকার অসহায় পরিবার 
ছবিঃ সংগৃহীত

আবু তাহের। স্টাফ রিপোর্টার।। ১৫ এপ্রিল, বৃহস্পতিবার।। গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার পল্লীতে শিক্ষক আনিছুর রহমান রতন কর্তৃক অন্যের স্ত্রী-সন্তানদের লাঞ্চিতসহ বেধড়ক মারপিটে গুরুতর আহত করেছে। ভূক্তভোগী পরিবারটি এঘটনার সুষ্ঠু বিচার চেয়ে থানায় একটি অভিযোগ দাখিল করেছেন। 

পরিবারটির অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কিশোরগাড়ী ইউনিয়নের বুজরুক টেংরা গ্রামের ময়নুল হকের ছেলে আলামিন মিয়া। দিনমজুরের কাজ করায় তাকে প্রায়ই বাড়ীর বাইরে থাকতে হয়। এদিকে একই গ্রামের মৃত আজগর আলী মাস্টারের ছেলে বেংগুলিয়া হাজী আব্দুল গণি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আনিছুর রহমান রতন বিচ্ছিন্ন তুচ্ছ বিষয়কে কেন্দ্র করে আলামিনের স্ত্রী ও সন্তানদের প্রায়ই বেধরক মারপিট করে থাকেন।

অহেতুক মারপিটের বিষয়টি অমানবিক জানিয়ে আলামিনের চাচী শিক্ষক রতনকে একাধিক দিন মৌখিক নিষেধ করেন। এরপরও রতন নিষেধ উপেক্ষা করে মারপিট অব্যাহত চালিয়ে যান। এরই ধারাবাহিকতায় গত সোমবার রতনসহ তার স্ত্রী লাবনী বেগম বোন রিমা বেগম ও তাসলিমা বেগম আকস্মিক চড়াও হয়ে আল আমিনের স্ত্রী ও সন্তানদের আবারো মারপিট করে। মানুষ গড়ার একজন শিক্ষকের এমন অমানবিক ঘটনায় এলাকার সর্বস্তরের সচেতন জনমনে বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা ও গুঞ্জনসহ মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করেছে।

বিষয়টির সুরহাকল্পে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সমন্বয়ে আলোচনার সিদ্ধান্ত মোতাবেক গত ৭ এপ্রিল আলামিন বাদী হয়ে দোষী শিক্ষক রতন, তার স্ত্রী ও দুই বোনকে বিবাদী করে থানায় একটি অভিযোগ দাখিল করেছেন।

থানার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই হাসিবুর রহমান হাসিব সোমবার সন্ধায় ঘটনাস্থল পরিদর্শনসহ বিষয়টির প্রাথমিক তদন্ত করেছেন। 

অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণসহ দৃষ্টান্তমূলক শান্তির দাবী জানিয়েছেন ভুক্তভোগী পরিবারটি।