ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে মাদ্রাসাছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা

ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে মাদ্রাসাছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা
ছবি: সংগৃহীত

মাগুরা প্রতিনিধি।। মাগুরার মহম্মদপুরে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে নবম শ্রেণির মাদ্রাসার ছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষ। নিহত হাসিব উপজেলার পলাশবাড়িয়া ইউনিয়নের চর ঝামা গ্রামের মৃত শায়েখ মুন্সির ছেলে। 

শনিবার বিকাল সাড়ে ৬টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত হাসিব ঝামা বরকতুল উলুম ফাজিল মাদ্রাসার নবম শ্রেণিতে পড়া লেখা করত। তিন বোন দুই ভাই মধ্যে হাসিব সবার ছোট ছিল।  

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্র জানা গেছে, শনিবার বিকালে চর ঝামা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে ফুটবল খেলা নিয়ে একই লিয়াকত আলীর ছেলে সুমনের (১৫) মধ্যে কথাকাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়। এ ঘটনা সুমন বাড়িতে গিয়ে জানায়। পরে সুমন ২০-৩০ জন লোকজন ডাল, সরকি, রামদা, চ্যান্দাসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বিদ্যালয়ের সামনে একা বসা থাকা হাসিব উপর হামলা করে সরকি দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রতিবেশী ফরিদপুর জেলার বোয়ালমারি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। বিষয়টি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে দুপক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে  পাল্টাপাল্টি ধাওয়া ও সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। থেমে থেমে প্রায় আধা ঘণ্টা ধরে সংঘর্ষ হয়। এ সময় উভয় পক্ষের বেশ কিছু বাড়িঘরও ভাংচুর করা হয় এবং সাইফার (৬০), মনোয়ারা খাতুনসহ (৪০) বেশ কয়েকজন গুরুতর আহত হয়। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনা স্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আহতদের মধ্যে সাইফার ও মনোয়ারাকে গুরুতর অবস্থায় ফরিদপুর জেলার বোয়ালমারি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা। 

এর আগে শুক্রবার মধুমতি নদীর পাড়ে তাস খেলা নিয়ে ওই গ্রামের লুৎফর মোল্যার ছেলে ইউসুফ ও আশরাফুল সঙ্গে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়। অনেকের ধারনা ফুটবল খেলা নামমাত্র সে ঘটনার প্রতিশোধ নিতে গিয়ে হাসিবকে হত্যা করা হয়েছে।

রাত ৯টার দিকে হাসিবের মৃত্যুর খবর শুনার পর থেকে মধুমতি নদীর পূর্ব পাড়ে দুর্গম চর ঝামা গ্রামে রাতে হাসিবের বাড়িতে শোকের মাতম চলছে। মা মাজেদা খাতুন ভাই বোন ও প্রতিবেশীদের কান্না আহাজারি চলছে। পিতৃহারা বাড়ির নিরিহ ছোট ছেলেকে কি কারণে হত্যা করল তার কারণ খুঁজে পাচ্ছে না।

নিহত হাসিবের বড় ভাই আমানত মুন্সী কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, খেলা বা জমিজমা নিয়ে কিংবা ওই দুই পক্ষের কারও সঙ্গে তাদের কোনো সম্পৃক্ততা নেই। তবে তার নিরপরাধ ভাইকে খুন করল কেন? নিরপরাধ হাসিব হত্যাকারীদের গ্রেফতার করে ন্যায়বিচারের দাবি করেন। 

হাসিবের নিহতের খবর পেয়ে ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছেন মাগুরা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সলিমুল্লা ও সার্কেল মো. হাফিজুর রহমান। 

মহম্মদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আশরাফুল ইসলাম বলেন, পূর্ব বিরোধ ও আজকের ফুটবল খেলা নিয়ে কথা-কাটাকাটির জেরে হাসিব নিহত হয়েছে। পরবর্তী সংঘর্ষ এড়াতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।  হত্যার ঘটনায় দোষীদের আটকের চেষ্টা চলছে।