বাউফলের ধূলিয়া নদী ভাঙন রক্ষা প্রকল্প কাজের শুভ উদ্বোধন

বাউফলের ধূলিয়া নদী ভাঙন রক্ষা প্রকল্প কাজের শুভ উদ্বোধন
ছবিঃ সংগৃহীত

মো.ফোরকান,বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি।।পটুয়াখালীর বাউফলে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের বাস্তবায়নে তেঁতুলিয়া নদীর ভাঙন থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য উপজেলার ধূলিয়া ইউনিয়ন লঞ্চঘাট হতে বাকেরগঞ্জ দূর্গাপাশা রক্ষা প্রকল্প শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় নদী তীর রক্ষা প্রকল্প কাজের শুভ উদ্বোধন করেন পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক এমপি ও সাবেক চীফ হুইপ বীর মুক্তিযোদ্ধা আ.স. ম ফিরোজ এমপি। আজ রবিবার দুপুর ২ টার দিকে উপজেলার ধূলিয়া লঞ্চঘাট এলাকায় এ কাজের শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হয়।

পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক এমপি বলেন,শেখ হাসিনার সরকার বাংলাদেশের ইতিহাসে শ্রেষ্ঠ সরকার।এই সরকারের আমলে দেশের যত উন্নযন হয়েছে তা ইতিহাসযোগ্য।এর আগে কোন সরকার এত উন্নয়ন মূলক কাজ করতে পারেনি। শেখ হাসিনা দক্ষিনাঞ্চল উন্নয়নের জন্য ব্যাপক কাজ করছেন।
স্থানীয় এমপি আ.স.ম ফিরোজ বলেন,সকল প্রকার উন্নয়ন দিয়ে দেশের গ্রামকে শহরে রুপান্তর করা হবে। শেখ হাসিনা সরকারের আমলে এখন প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ,গ্রামগঞ্জে রাস্তাঘাট,সেতু কালভার্ট সহ ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। বর্তমান সরকার যেখানে যা প্রয়োজন সব করছে। ধূলিয়া ইউনিয়নের জনগণের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন তেঁতুলিয়া নদীর ভাঙন থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য নদী রক্ষা প্রকল্প কাজের উদ্বোধনের মাধ্যমে বাস্তবায়ন হতে যাচ্ছে। তার আবেদনের প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নদীভাঙন রোধে ৭২১ কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছেন।
তিনি আরো বলেন যে ঠিকাদার কাজ পেয়েছেন তাকে সঠিক ভাবে এবং যথাসময়  কাজ সমাপ্ত করার আহবান জানান।
বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান প্রকৌশলী নূরুল  ইসলাম সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিবার্হী  প্রকৌশলী  হালিম সালেহী, এলজিইডির সাবেক প্রকল্প  পরিচালক  মো. সেলিম,ইউএনও মোঃ আল আমিন,ভাইস চেয়ারম্যান মোশারেফ হোসেন খান,ধূলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির,নদী রক্ষা কমিটির আহবায়ক ও জেলা পরিষদ সদস্য জহির উদ্দিন বাবর , হারুন অর রশিদসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ।
উল্লেখ্য ধূলিয়া ইউনিয়নকে তেঁতুলিয়া নদীর ভাঙন থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য স্থানীয় এমপি সাবেক চীফ হুইপ আ. স. ম ফিরোজ এর  আবেদনের প্রেক্ষিতে গত বছর ১৮ আগষ্ট প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে একনেক বৈঠকে নদীভাঙন রোধে ৭২১ কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়।