বাউফলের সেই বিতর্কিত ওসি ক্লোজ

বাউফলের সেই বিতর্কিত ওসি ক্লোজ
ছবিঃ সংগৃহীত

মো.ফোরকান,বাউফল,পটুয়াখালী।।৩০ মার্চ-২১,মঙ্গলবার।।অবশেষে সেই বহুল বিতর্কিত বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মোস্তাফিজুর রহমানকে ক্লোজ করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার তাকে ক্লোজ করে পটুয়াখালী পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে। পটুয়াখালীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মাহফুজুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।  মোস্তাফিজুর রহমান গত বছর (২০২০ ) ফপব্রুয়ারি মাসে বাউফল থানায় ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে যোগদান করেন। তাকে ক্লোজ করার খবর ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা স্বস্তি প্রকাশ করেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও অনেকে দিয়েছেন (শুকরিয়ামূলক স্ট্যাটাস)।

এর আগে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান নানা কর্মকান্ড বিতর্কিত হয়ে উঠে। তিনি যোগদানের পর গত বছর ২৪ মে বাউফল থানার সামনে যুবলীগ নেতা তাপস খুন হন। একই বছর ২ আগস্ট কেশবপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের দুই পক্ষের আভ্যন্তরীন কোন্দলের জের ধরে ওই ইউনিয়নের যুব লীগপর সহ-সভাপতি রুমেন তালুকদার ও তার চাচাতো ভাই ইশাত তালুকদার খুন হন। এই খুনের ঘটনার আগের দিন এক পক্ষ অপরপক্ষের উপর হামলা করে। ওই হামলার ঘটনায় রুমেন ও ইশাতের ভাই লিখিত ভাবে ওসি মোস্তাফিজুর রহমানকে জানালেও তিনি কোন পদক্ষেপ নেননি। যার ফলে পরদিন এ জোড়া খুনের ঘটনা ঘটে। এ ছাড়াও তার বিরুদ্ধে পৌর শহরে সরকারি দলের এক পক্ষকে মদদ দেয়ার অভিযোগ রয়েছে। যে কারণে বাউফলে সরকারি দলের দুই পক্ষের মধ্যে প্রায়ই সংঘর্ষ হতো। 
তিনি এ থানায় যোগদান করার পর পৌরশহরসহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় চুরি, ডাকাতি, খুনখারাবিসহ আইনশৃংখলার ব্যাপক অবনতি ঘটতে থাকে। 
এছাড়াও গত কয়েক দিন আগে ওসি মোস্তাফিজুর রহমান দ্রুত বিচার আইনে দায়েরকৃত মামলাসহ একাধিক মামলার আসামীদের সাথে সেলফি তুলে কয়েকটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকার শিরোনাম হন। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে তদন্তশেষে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করা হয়। ওই সুপারিশের ভিত্তিতেই তাকে ক্লোজ করা হয়েছে।