বাউফলে ইউপি চেয়ারম্যানের সাথে কিশোরীর বিয়ে,তদন্তে হাইকোর্টের নির্দেশ

বাউফলে ইউপি চেয়ারম্যানের সাথে কিশোরীর বিয়ে,তদন্তে হাইকোর্টের নির্দেশ
ছবিঃ সংগৃহীত

মো.ফোরকান,বাউফল,পটুয়াখালী।। ২৮ জুন,সোমবার।। পটুয়াখালীর বাউফলে সালিশ করতে গিয়ে কিশোরীকে বিয়ে করা সেই ইউপি চেয়ারম্যানের ঘটনায় ৩টি বিষয়ে আমলে নিয়ে তদন্ত করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট ।

৩০ দিনের মধ্যে পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক,জেলা নিবন্ধক ও পিবিআইকে তদন্ত করে আলাদা তিনটি প্রতিবেদন সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল বরাবরে দাখিল করতে বলেছেন । একইসঙ্গে ওই কিশোরীকে নিরাপত্তা দিতে জেলা পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ।
এবিষয় বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন নজরে নিয়ে গত রবিবার,২৭জুন বিচারপতি ফারাহ মাহবুব ও বিচারপতি এসএম মনিরুজ্জামানের ভাচুর্য়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ রুলসহ এ আদেশ দেন । পরবর্তী আদেশের জন্য ৮ আগষ্ট দিন নির্ধারণ করা হয়েছে ।
এরপক্ষে আদালতে শুনানি করেন,আইনজীবী আমাতুল করিম ও ইকরামুল টুটুল । সাথে ছিলেন আইনজীবী খায়রুন্নাসা নাসিমা,সীমা জহুর ও কানিজ ফাতেমা ।
পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক ক্ষমতার অপব্যবহার তদন্ত করবেন,পিবিআই ফৌজদারি অপরাধের বিষয়ে তদন্ত করবেন এবং জেলা নিবন্ধক বিয়ে নিবন্ধনের বিষয়ে তদন্ত করবেন । এ ঘটনায় কোন পদক্ষেপ নেওয়া হলে তাও জানাতে হবে ।
উল্লেখ্য,উপজেলার কনকদিয়া ইউনিয়নের নজরুল ইসলামের মেয়ের সঙ্গে একই ইউনিয়নের নারায়ণপাশা গ্রামের রমজান নামে এক যুবকের দীর্ঘদিন  পর্যন্ত প্রেমের সস্পর্ক ছিলো। গত বৃহস্পতিবার রাতে তারা দুইজনে পালিয়ে যায়। বিষয়টি কিশোরীর বাবা ওই ইউপি চেয়ারম্যান শাহিন হাওলাদারকে জানান। এরপর চেয়ারম্যান সালিশ করার নাম করে উভয়ের পক্ষের লোকজনকে তার বাসায় ডাকেন। কিশোরীকে দেখার পর চেয়ারম্যান নিজেই পছন্দ করে শুক্রবার জুম্মা নামাজের পরে স্থানীয় কাজী  আবু সাদেককে বাড়িতে ডেকে ৫ লাখ টাকা দেনমোহরে ওই কিশোরীকে বিয়ে করেন। এদিকে এই বিয়ের খবর শুনে প্রেমিক রমজান বিষপান করে আত্যহত্যার চেষ্টা করে । পরে রমজানকে স্থানীয়রা বাউফল সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। ঘটনাটি নিয়ে এলাকায় ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়। সামাজিক ও পারিবারিক কারনে শনিবার একই কাজীর মাধ্যমেই  বিবাহিত কিশোরকে দিয়ে তালাক দেওয়া হয়। 
চেয়ারম্যান শাহিন হাওলাদার জানান,ওই মেয়ে তাকে স্বামী হিসেবে মেনে না নেওয়ায় মেয়ে নিজে সেচ্ছায় তালাক দিয়ে বাবার সাথে বাড়ী চলে যায়।
এদিকে চেয়ারম্যনের সাথে তালাক হওয়ার পর কিশোরীর প্রেমিক রমজানের সাথে গত রবিবার সকালে কিশোরীর মামার বাড়ীতে বসে বিবাহ হয় ।
জানা যায় এই নিয়ে ওই  কিশোরীর তিনটি বিবাহ হয়েছে। তা নিয়েও এলাকায় জল্পন্না কল্পন্না চলছে ।